kalerkantho


পাঠকের নতুন ঠিকানা ‘বেঙ্গল বই’-এর যাত্রা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



পাঠকের নতুন ঠিকানা ‘বেঙ্গল বই’-এর যাত্রা

রাজধানীতে পাঠক ও বইপ্রেমীদের জন্য আরেকটি নতুন আড্ডা ও বই কেনার জায়গা তৈরি হলো। বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘বইয়ের মাঝে ডুব’ প্রতিপাদ্যে লালমাটিয়ায় যাত্রা শুরু করল বইয়ের বিপণিবিতান ‘বেঙ্গল বই’।

এখানে শুধু বই পড়াই নয়, রয়েছে জমিয়ে আড্ডা দেওয়ার কিংবা শিল্পের রস আস্বাদনের সুযোগ। আয়োজকদের আশা, প্রকৃত পাঠকের জন্য আনন্দের ঠিকানা হয়ে উঠবে এই বইবিতান।

আয়োজকরা জানান, বেঙ্গল বই-তে মিলবে দেশ-বিদেশের স্বনামধন্য সব প্রকাশনীর উল্লেখযোগ্য বই। প্রশস্ত আঙিনায় বসে পড়া যাবে বই বা সাময়িকী। পড়তে পড়তে সেই বই বা ম্যাগাজিনটি পছন্দ হলে বাড়িতে নিয়েও যাওয়া যাবে। বই পড়া ও দেখার পাশাপাশি চা, কফি ও ফ্রেশ জুস পাওয়া যাবে। পাওয়া যাবে স্বাস্থ্যসম্মত নাশতা। রয়েছে শিশু-কিশোরদের জন্য স্বপ্নরাজ্য ‘আকাশ কুসুম’। শিশুরা এই কর্নারে বসে বই পড়তে পারবে, আঁকতে পারবে।

খেলতেও পারবে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বেঙ্গল বই-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী ও ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের লিটু ও অধ্যাপক নিয়াজ জামান। অনুষ্ঠানে বেঙ্গল পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত মুক্তিযুদ্ধের ব্যক্তিক আখ্যান ‘স্টোরিস ফ্রম দি এজ : পারসোনাল নেরেটিভস অব দি লিবারেশন ওয়ার’ শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিরা।

৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতির সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে ইউনেসকোর ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার’-এ যুক্ত হওয়ায় আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। গতকাল সন্ধ্যায় একাডেমির নন্দনমঞ্চের এই আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, সংস্কৃতিসচিব মো. ইব্রাহীম হোসেন খান, কবি নির্মলেন্দু গুণ এবং বাংলাদেশ বেতারের সাবেক উপপরিচালক আশফাকুর রহমান খান।


মন্তব্য