kalerkantho


দেশজুড়ে উদ্‌যাপন আজ শোভাযাত্রায় মিলবে সবাই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



দেশজুড়ে উদ্‌যাপন আজ শোভাযাত্রায় মিলবে সবাই

ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগ ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সরবরাহ করা আনন্দ শোভাযাত্রার সড়ক নির্দেশনা

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের বিশ্ব স্বীকৃতি উদ্‌যাপনে আজ শনিবার রাজধানীসহ দেশজুড়ে আনন্দ উত্সব হবে। জাতির পিতার প্রতি পুষ্পস্তবক নিবেদন, আনন্দ শোভাযাত্রা, সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উদ্‌যাপন করা হবে এ অর্জন।

ঢাকায় বিভিন্ন স্থান থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা বের হবে আজ। বিকেলে সবাই এসে মিলিত হবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। সেখানে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।   

১৮ মিনিটের অলিখিত সেই ভাষণ ছিল জাতির মুক্তির সনদ, মুক্তির যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ার অফুরন্ত উত্স। আজ বাজানো হবে সেই ভাষণ, ভেসে আসবে সেই বজ্রকণ্ঠ। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয়গুলো বিভিন্ন অধিদপ্তরকে একই নির্দেশ দিয়েছে বলে জানা গেছে। বিদেশে বাংলাদেশের মিশনগুলোতেও স্বীকৃতির এ অর্জন আজ উদ্‌যাপনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ইউনেসকো ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে বঙ্গবন্ধুর ওই ভাষণের স্বীকৃতি দিয়েছে গত ৩০ অক্টোবর।

এর পর থেকে আওয়ামী লীগ ধারাবাহিক কর্মসূচি পালন করছে। গত ১৮ নভেম্বর নাগরিক কমিটির উদ্যোগে সমাবেশ হয়েছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে।

আজ ঢাকায় সবাই একই সময়ে বিভিন্ন স্থান থেকে রওনা দিয়ে মিলবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। শোভাযাত্রায় মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তি, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিশু-কিশোর, ক্রীড়া সংগঠক ও খ্যাতিমান ক্রীড়াবিদ, সংস্কৃতিকর্মী ও সংগঠক, স্কাউটস ও রোভারের সদস্যসহ সর্বস্তরের মানুষ এবং শিল্পকলা একাডেমি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও বিভিন্ন এনজিও অংশ নেবে। পুলিশ, বিজিবি, আনসার ও ভিডিপিও শোভাযাত্রায় অংশ নেবে।

গতকাল শুক্রবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে শোভাযাত্রার প্রস্তুতির বিষয়ে অবহিত করেছেন মন্ত্রিপরিষদসচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। আনন্দ শোভাযাত্রার সার্বিক দিক তুলে ধরে তিনি জানান, কেন্দ্রীয়ভাবে দুপুর ১২টায় ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। এরপর শুরু হবে শোভাযাত্রা। কলাবাগান-সায়েন্স ল্যাব হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গিয়ে তা শেষ হবে। বিকেল ৩টায় সেখানে সভা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতে প্রধান অতিথি থাকবেন। স্বাগত বক্তব্যের পর ৭ই মার্চের ভাষণের প্রেক্ষাপট বর্ণনা করে ভাষণটি বাজানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের পর শুরু হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শেষে থাকবে লেজার শো। ঢাকার বাইরে সব জেলা-উপজেলায়ও আনন্দ শোভাযাত্রা ও সভা হবে।

রাজধানীতে চলাচলের রুট : আজ শোভাযাত্রার রুট দেখে চলাচলের অনুরোধ জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগ। ডিএমপির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ট্রাফিক বিভাগকে সহযোগিতা করতে নগরবাসীকে অনুরোধ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, শনিবার আনন্দ শোভাযাত্রার রুট বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর থেকে শুরু করে মিরপুর রোডের রাসেল স্কয়ার দিয়ে কলাবাগান হয়ে সায়েন্স ল্যাবে বাঁয়ে মোড় নিয়ে বাটা সিগন্যাল-কাঁটাবন ক্রসিং হয়ে শাহবাগে ডানে মোড় নিয়ে ছবির হাট হয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গিয়ে শেষ হবে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢোকার ক্ষেত্রে ছবির হাট গেট (চারুকলার বিপরীতে), টিএসসি গেট (বাংলা একাডেমির বিপরীতে), কালীমন্দির গেট ও তিন নেতার মাজার গেট ব্যবহার করতে হবে।


মন্তব্য