kalerkantho


কসবায় আইনমন্ত্রী

ভোট ব্যাহত করার চেষ্টা হলে জবাব দেওয়া হবে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ভোট ব্যাহত করার চেষ্টা হলে জবাব দেওয়া হবে

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘নির্বাচন ব্যাহত কিংবা দেশে কাউকে গণ্ডগোল করতে দেওয়া হবে না। কেউ তা করতে চাইলে শুধু ভোটেই নয়, আইনের মাধ্যমেও এর জবাব দেওয়া হবে।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় গতকাল রবিবার বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন উপলক্ষে পৌর এলাকার তালতলা গ্রামে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্র ফিরে এসেছে। বাংলাদেশের মানুষ নির্বাচনের পথ পরিহার করবে না। সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে আগামীতে আমরা (আওয়ামী লীগ) আবারও ক্ষমতায় আসব।’

উপজেলার তালতলা, গুরিয়ারূপ, আড়াইবাড়ী, গুরুহিত, মরা পুকুরপাড়, কাঞ্চনমুগি, শীতলাপাড়া, কৃষ্ণপুর, মাইজখার-বিষ্ণুপুর গ্রামে বিদ্যুতায়ন উপলক্ষে এ জনসভার আয়োজন করা হয়। এ সময় মন্ত্রী জানান, আগামী মার্চ মাসের মধ্যেই কসবাকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা হবে। এরই মধ্যে আখাউড়া শতভাগ বিদ্যুতায়িত হয়েছে।

কসবা পৌরসভার মেয়র এমরান উদ্দিন জুয়েলের সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জিএম আবদুল ওয়ারিদ, কসবা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনিসুল হক ভূঁইয়া ও আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট রাশেদুল কাওছার ভূঁইয়া জীবন। বিকেলে মন্ত্রী আখাউড়ার মোগড়া ইউনিয়নে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন।

সম্প্রতি পদত্যাগ করা প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার সমালোচনা করেন আইনমন্ত্রী। কসবার অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘দুর্নীতির কারণেই তিনি পদত্যাগ করেছেন। ওনার বিরুদ্ধে ১১টি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। যে কারণে ওনার সঙ্গের অন্য বিচারকরা বসতে চাইছিলেন না। ওনাকে এসব অভিযোগের জবাব দিতে বলেছিলেন অন্য বিচারকরা। আর এ কারণেই তিনি পদত্যাগ করেন। আর বিএনপি বলে আমরা নাকি পদত্যাগ করিয়েছি। তাহলে তারা প্রমাণ করুক যে আমরা পদত্যাগ করিয়েছি।’

আনিসুল হক বলেন, ‘আমি শুধু সংবিধান অনুসারে রাষ্ট্রপতি দেশের এক নম্বর ব্যক্তি বলে উল্লেখ করেছিলাম। বলেছিলাম, সংবিধান হচ্ছে সর্বোচ্চ আইন। কিন্তু ওনি (এস কে সিনহা) এটা মানতে রাজি নন। এর পর থেকেই তিনি নানা কথা বলতে থাকেন। তিনি গোস্সা করেন। এক অনুষ্ঠানে ঘোষণা দিয়ে তিনি রাজনৈতিক বক্তব্য দেন। পরে আমি শুধু বলেছিলাম যে, কোনো দেশের প্রধান বিচারপতিই এত কথা বলে না। তিনি নিজের ইচ্ছাতেই ছুটি নেন ও পদত্যাগ করেন।’

আইনমন্ত্রী আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন মর্যাদার আসনে বসেছে। এখন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট যখন জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা দেন তখন তিনি এর প্রতিবাদ করতে পারেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের রেলে উঠে গেছে।’

মন্ত্রী আনিসুল হক সকালে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী মহানগর প্রভাতী ট্রেনে এসে আখাউড়ায় নামেন। সেখান থেকে সড়কপথে কসবায় যাওয়ার পথে তিনি আখাউড়ার মোগড়া এলাকায় সড়ক সংস্কারকাজ পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি শ্রমিকদের মাথায় মাটির ওড়া তুলে দিয়ে সবার নজর কাড়েন।


মন্তব্য