kalerkantho


দেশে কোরআনের আদলে প্রথম ভাস্কর্য কসবায়

বিশ্বজিৎ পাল বাবু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া   

২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা পৌর এলাকায় তিন রাস্তার মোড় হিসেবে পরিচিত কদমতলার মোড়ে তৈরি হচ্ছে একটি ভাস্কর্য। পবিত্র কোরআন শরিফের আদলে করা হচ্ছে এটি। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, কোরআন শরিফের ভাস্কর্য দেশে এটিই প্রথম।    

এক সপ্তাহের মধ্যে এর নির্মাণকাজ শেষ হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। কিছুদিনের মধ্যে এটি উদ্বোধন করা হবে।

সৌদি আরবের জেদ্দা বিমানবন্দর থেকে মক্কা নগরীর প্রবেশদ্বারে পবিত্র কোরআনের আদলে তৈরি তোরণের মতোই এই ভাস্কর্য নির্মিত হচ্ছে বলে বলছে শহরের অনেকে।

কসবা পৌরসভা সূত্র জানায়, পৌরসভার উদ্যোগে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) অর্থায়নে এই ভাস্কর্য নির্মিত হচ্ছে। এর ব্যয় ধরা হয়েছে সাত লাখ ৬৮ হাজার ৫১৬ টাকা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের ছাত্র কামরুল হাসান শিপন এই ভাস্কর্যের নকশা তৈরি করেন। ভাস্কর্যটির উচ্চতা ১৬ ফুট। মেসার্স সান কমিউনিকেশন নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এর নির্মাণকাজ করছে।

গত রবিবার সরেজমিনে দেখা গেছে, কুটি-কসবা, নয়নপুর-কসবা, কসবা-সৈয়দাবাদ সড়কের সংযোগস্থলে ভাস্কর্যটি নির্মিত হচ্ছে। এর নির্মাণকাজ প্রায় শেষের দিকে।

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতা ও কসবার বাসিন্দা গাজী মাওলানা ইয়াকুব ওসমানী বলেন, ‘দেশের প্রথম কোরআনের ভাস্কর্য কসবাতে হওয়ায় এখানকার নাগরিক হিসেবে আমরা গৌরবান্বিত।’

কসবা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মনির হোসেন বলেন, ‘বর্তমান সরকার ধর্মীয় মূল্যবোধে বিশ্বাসী। ধর্মের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাবোধ ও আনুগত্য থেকেই পবিত্র কোরআন শরিফের এ ভাস্কর্য নির্মাণ করা হচ্ছে।’

ইসলামী ঐক্যজোট আখাউড়া শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক হাজি বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘আমাদের পাশের উপজেলায় এমন একটা উদ্যোগ নেওয়ায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মধ্যে আনন্দ বিরাজ করছে।’

কসবা পৌরসভার মেয়র মো. এমরান উদ্দিন জুয়েল বলেন, ‘ধর্মীয় অনুভূতি থেকেই কোরআনের ভাস্কর্য নির্মাণ করা হচ্ছে। এটিই দেশে প্রথম কোরআনের ভাস্কর্য।’

উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চৌধুরী স্বপন বলেন, ‘এ কাজের পেছনে যদি অন্য কোনো উদ্দেশ্য না থাকে তাহলে ঠিক আছে। তবে বিশেষ কোনো গোষ্ঠীর কথায় কিংবা কোনো গোষ্ঠীকে খুশি করার জন্য যদি সেটা করা হয়ে থাকে তাহলে সেটা ভালো কোনো মেসেজ বহন করবে না। সবাইকে মনে রাখতে হবে, বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র।’

এ প্রসঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক গতকাল সন্ধ্যায় কালের কণ্ঠকে জানান, কোরআন শরিফের ভাস্কর্য নির্মাণ সম্পর্কে তিনি অবগত আছেন। তবে ভাস্কর্য নির্মাণকাজ শেষ না হওয়া এবং এটি না দেখা পর্যন্ত এ বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করবেন না বলে জানান।

 


মন্তব্য