kalerkantho


ফ্রেমবন্দি হাজারো গল্পের আলোকচিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বহুমাত্রিক আলোকচিত্র ঝুলছে দৃক গ্যালারির দেয়ালজুড়ে। আলোকচিত্রীরা তুলেছেন অনবদ্য সব আলোকচিত্র। তাঁরা তুলে এনেছেন ছবির পেছনের গল্পও। এক ছবিতে দেখা যায়, ডুবন্ত সূর্যের দিকে তাকিয়ে এক উদাসী মানুষ। অন্য ছবিতে রেললাইনে বৃষ্টিতে খেলছে কিশোর-কিশোরীরা। কিছু আলোকচিত্রীর ছবিতে উদ্ভাসিত হয়েছে প্রকৃতি ও জীবনের কথা। কোনো ফ্রেমে মূর্ত হয়েছে খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষের জীবনচিত্র। উঠে এসেছে আবহমান বাংলার নয়নাভিরাম দৃশ্যকলা। ছবিগুলোয় উঠে এসেছে জীবনের বহুবিধ বিষয়। উঠে এসেছে হাজারো গল্প। বিশ্বের নানা প্রান্তের শৌখিন আলোকচিত্রীদের তোলা সেসব ছবি শুধু ক্যামেরায় নয়, ধারণ করা হয়েছে মুঠোফোনেও। সেসব আলোকচিত্রীর ছবি নিয়ে ফেসবুক গ্রুপ ‘ছবি’ আয়োজন করেছে ‘থাউজেন্ড স্টোরিজ’ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনী।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ধানমণ্ডির দৃক গ্যালারিতে এই প্রদর্শনীর সূচনা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন ওয়াইল্ড লাইফ ফটোগ্রাফার আফজাল করিম, তাজমা সিরামিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক মতিউর রহমান এবং বগুড়া ফটোগ্রাফি ক্লাবের সভাপতি ডা. মোসাদ্দেক রহমান।

‘ছবি’র প্রধান তৌহিদ পারভেজ জানান, ‘থাউজেন্ড স্টোরিজ’-এর এটি দ্বিতীয় আয়োজন; যাতে বিভিন্ন দেশের ৮২০ জন আলোকচিত্রীর চার হাজার ২০০টি ছবি জমা পড়ে; যার মধ্য থেকে প্রদর্শনীতে বাংলাদেশ ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, আরব আমিরাতের আলোকচিত্রীদের ১৫০টি আলোকচিত্র স্থান পেয়েছে। শুধু তাই নয়, প্রথম তিনজন আলোকচিত্রীকে পুরস্কারও দেওয়া হয়। এ বিচারপ্রক্রিয়ার সদস্য ছিলেন আবদুস এস আলিম, তানভির রোহান ও ইউসুফ তুষার। প্রদর্শনীর জন্য নির্বাচিত সেরা ছবিটি তুলেছেন রজিবুল ইসলাম। এ ছাড়া দ্বিতীয় ও তৃতীয় সেরা ছবি ইসমাইল খান নাঈম ও হিমেল নবীর।

মনজুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ‘আলোকচিত্র অত্যন্ত শক্তিশালী মাধ্যম। আলোকচিত্র নিছক ছবি নয়, তার চেয়ে বেশি কিছু।’


মন্তব্য