kalerkantho


সিবিএ লীগের সমাবেশ

বিমানের গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং ব্যাহত!

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বিমানের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন বিমান-সিবিএ লীগের ব্যানারে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বলাকা ভবনে সমাবেশ করেছেন কর্মচারীরা। এ কারণে গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং শাখা ও বলাকা ভবনের কাজে ব্যাঘাত ঘটে। মালপত্র ওঠানামায় সমস্যা হয়।

বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মোসাদ্দিক আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, নির্দেশ অমান্য করে যারা মিছিল সমাবেশ করেছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিমানের কর্মকর্তারা বলছেন, বিমানের চাকরিকে অত্যাবশ্যকীয় ঘোষণা করা হয়েছে। তাই কর্মচারীদের এই কার্যক্রম শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবেই গণ্য হবে। তবে সিবিএ নেতারা বলেছেন, নিয়ম মেনেই সমাবেশ করা হয়েছে। চলতি মাসের মধ্যে তাঁদের দাবি না মানলে ফেব্রুয়ারি থেকে ওভার টাইম পালন না করাসহ কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলারও হুমকি দেন তাঁরা।

তবে নির্দেশ অমান্য করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বিমান শ্রমিক লীগের সভাপতি মশিকুর রহমান। বিমানের সব কার্যক্রম অচল ছিল—এমন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘কথাটি ঠিক নয়। কারণ যারা দুপুরের শিফটে কাজ করে তারাই মূলত সমাবেশে এসেছে। আমাদের দাবিদাওয়া নিয়ে কথা হয়েছে। ৩১ জানুয়ারির মধ্যে দাবি মানতে হবে। আর না হয় ১ ফেব্রুয়ারি থেকে কোনো ওভার টাইম করা হবে না। কোনো ক্যাজুয়াল নিয়োগ দেওয়া যাবে না।’ তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু যে নামে বিমানের নাম রেখেছিলেন তাই রাখতে হবে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস বলা যাবে না।’

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল (অব.) মুহাম্মদ ইনামুল বারী সাংবাদিকদের বলেন, ‘কেবল অস্থায়ী শ্রমিকদের সমস্যাই নয়, সাত আট বছর ধরে বিমানে বদলি পদোন্নতি বন্ধ ছিল। আমরা ওই অবস্থান থেকে উত্তরণের চেষ্টা করে যাচ্ছি।’

গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং সাময়িক বন্ধ থাকায় যাত্রীদেরও ভোগান্তি হয়েছে। গতকাল বিমানে রাজশাহী থেকে ঢাকা আসা একজন গণমাধ্যমকর্মী ফেসবুকে লেখেন, সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে রাজশাহী থেকে যাত্রা করার কথা থাকলেও কী কারণে যেন বিমান যাচ্ছিল না। অবশেষে নির্ধারিত বিমানটি পৌঁছায় দুপুর ২টা ১০ মিনিটে। রওনা দিয়ে ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে নামার পর শুরু হয় লাগেজের জন্য অপেক্ষার নতুন ভোগান্তি। ঘণ্টা দুয়েক পর অতীষ্ঠ হয়ে অনেক দৌড়ঝাঁপ করে লাগেজ বের করতে হয়। হতাশ ওই সাংবাদিক লেখেন, ‘আজ বিমানের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনে এই পরিসেবা আমাদের ভাগ্যে ছিল?’


মন্তব্য