kalerkantho


যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ উদ্বেগ তালিকায় মিয়ানমার

নজরদারিতে পাকিস্তান

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর গণহত্যা চালানো মিয়ানমারকে আবারও বিশেষ উদ্বেগের দেশের তালিকায় ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র। মিয়ানমার ছাড়াও চীন, ইরিত্রিয়া, ইরান, উত্তর কোরিয়া, সুদান, সৌদি আরব, তাজিকস্তান, তুর্কমেনিস্তান ও উজবেকিস্তান রয়েছে ওই তালিকায়।

অন্যদিকে ধর্মীয় স্বাধীনতার গুরুতর লঙ্ঘনের জন্য পাকিস্তানকে ‘বিশেষ নজরদারি তালিকায়’ রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্রের ১৯৯৮ সালের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা আইনের আওতায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন গত ২২ ডিসেম্বর এই তালিকা করেন। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র হিদার নুয়ার্ট গত বৃহস্পতিবার রাতে এক বিবৃতিতে এ কথা জানান।

হিদার নুয়ার্ট বলেন, ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে বা ধর্মীয় স্বাধীনতা চর্চা করায় বিশ্বের অনেক স্থানে এখনো লোকজনকে হয়রানি, অন্যায়ভাবে বিচার বা আটক করা হচ্ছে। বর্তমানে বেশ কিছু সরকার তাদের দেশের নাগরিক বা বাসিন্দাদের ধর্মীয় বিশ্বাস চর্চা বা উপাসনালয়ে যেতে বাধা দিচ্ছে।

হিদার নুয়ার্ট বলেন, শান্তি, স্থিতিশীলতা ও সমৃদ্ধির জন্য ধর্মীয় স্বাধীনতার সুরক্ষা অপরিহার্য। সুনির্দিষ্ট কিছু দেশকে ধর্মীয় স্বাধীনতা পরিস্থিতি উন্নতির লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ওই তালিকায় স্থান দেওয়া হয়েছে। বিশ্বজুড়ে বৈশ্বিক স্বাধীনতা চর্চাকে এগিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন দেশের সরকার, নাগরিক সমাজ সংগঠন ও ধর্মীয় নেতাদের সঙ্গে কাজ করতে অঙ্গীকারবদ্ধ।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারে রাষ্ট্রীয় মদদে নির্যাতিত-নিপীড়িত রোহিঙ্গাদের প্রায় সবাই মুসলমান। রাখাইন রাজ্যে তাদের ধর্মচর্চা ও মসজিদে যাওয়ার ওপর বিধিনিষেধ আছে বলে অভিযোগ রয়েছে।


মন্তব্য