kalerkantho


তিতুমীর কলেজের ছাত্রকে বাসচাপায় হত্যা

গ্রেপ্তার চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



তিতুমীর কলেজের ছাত্র শাকিল শেখকে বাসচাপায় হত্যার ঘটনায় চালক মোহাম্মদ ফয়েজকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, ওই চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার বনানী থানায় একটি মামলা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বনানী থানার এসআই শেখ মিজানুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, বাসচালক ফয়েজকে বৃৃহস্পতিবার রাতে বনানীর কাকলী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার পর বাসটি রাস্তায় রেখে পালানোর চেষ্টা করছিল সে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ফয়েজ পুলিশকে জানায়, ছাত্রদের সঙ্গে হেলপারের তর্কাতর্কির সময় সে বাসটি টান দিলে এক ছাত্র আহত হয়। পরে তার মৃত্যুর খবর জানতে পারে সে।

মামলার বাদী নিহত শাকিলের বন্ধু রায়হান এজাহারে উল্লেখ করেন, রাস্তা পার হওয়ার সময় শাকিলকে চাপা দেয় আইসিডিডিআরবির একটি বাস। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় শাকিল। বাসচালক ইচ্ছাকৃত শাকিলকে চাপা দেয়। বেপরোয়া বাস চালানোর কারণে তার পায়েও আঘাত লেগেছে।

গতকাল সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, তখনো রাস্তায় রক্তের দাগ। প্রত্যক্ষদর্শী মোহাম্মদ মিলন কালের কণ্ঠকে জানান, ঘটনার সময় তিনি দোকানের ভেতর বসে ছিলেন। চার কিশোর রাস্তা দিয়ে কথা বলতে বলতে হেঁটে যাচ্ছিল। হঠাৎ একটি বাস তাদের ধাক্কা দেয়। এই নিয়ে ছাত্ররা চিৎকার করে প্রতিবাদ জানায়। ওই ছাত্রদের মধ্যে দুজন প্রতিবাদ করতে করতে বাসটিতে উঠে পড়ে। চালক ও হেলপারের সঙ্গে তাদের তর্ক বেধে যায়। এর মধ্যে বাসটির হেলপার তাদের মারধর করে লাথি দিয়ে গাড়ি থেকে নিচে ফেলে দেয়। ওই সময় চালক এক ছাত্রের ওপর দিয়ে বাসের পেছনের চাকা উঠিয়ে দেয়।

আহত রায়হান জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাঁরা চার বন্ধু আমতলী এলাকায় রাস্তা পার হওয়ার সময় কলেরা হাসপাতালের একটি বাস তাঁদের ধাক্কা দেয়। তাঁরা বাসটি ধরতে সামনে এগিয়ে যান। একপর্যায়ে শাকিল ও সে বাসে উঠে পড়লে হেলপার তাঁদের ধাক্কা ও লাথি মেরে নিচে ফেলে দেয়। ওই সময় চালক শাকিলের শরীরের ওপর দিয়ে বাসটির সামনের চাকা উঠিয়ে দেয়। এতে মাথায় আঘাত পেয়ে শাকিল মারা যায়।

জানা গেছে, বাসটির মালিক আকবর হোসেন নামের এক ব্যক্তি। তাঁর কাছ থেকে কলেরা হাসপাতাল (আইসিডিডিআরবি) কর্তৃপক্ষ বাসটি ভাড়া নিয়ে স্টাফদের অফিসে আনা নেওয়া করত।


মন্তব্য