kalerkantho


চট্টগ্রামে মার্কিন রাষ্ট্রদূত

‘২০১২ সালের পর বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন হয়েছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বিখ্যাত ইকোনমিস্ট পত্রিকার উদ্ধৃতি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেছেন, ২০১২ সালের পর থেকে বাংলাদেশে আর্থ-সামাজিক খাতে যে উন্নয়ন হয়েছে তা বিশ্বের অন্য কোনো দেশে হয়নি। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে দেশের একমাত্র ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে চট্টগ্রাম চেম্বার নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময়সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

বার্নিকাট বলেন, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৩ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে সর্বোচ্চ বিনিয়োগকারী এবং একক হিসেবে বাংলাদেশ থেকে সর্বোচ্চ আমদানিকারক দেশ।

বাংলাদেশ পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বে বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে এবং বাংলাদেশি শ্রমিক কিছু ক্ষেত্রে অত্যন্ত দক্ষতা অর্জন করেছে। ভবিষ্যতে কৃষি, তথ্য-প্রযুক্তি (আইটি), নারী উন্নয়নে বাংলাদেশকে আরো সহায়তা দেবে যুক্তরাষ্ট্র।

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম দেশের সম্ভাবনাময় খাত—পাটজাত পণ্য, চামড়াজাত পণ্য, ওষুধ, প্লাস্টিক, সিরামিক ইত্যাদিতে বিনিয়োগের সুযোগের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া সুবিধা কাজে লাগিয়ে বিনিয়োগ বাড়ানোরও আহ্বান জানান। যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করে চট্টগ্রাম বন্দরের উন্নয়নে বে-টার্মিনালে বিনিয়োগের অনুরোধ জানান চেম্বার সভাপতি।

মাহবুবুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময়সভায় আরো বক্তব্য দেন চেম্বারের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মো. নুরুন নেওয়াজ সেলিম ও পরিচালক অঞ্জন শেখর দাশ, সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আলী আহমদ, সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি এম এ সালাম, সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ ও ডা. মঈনুল ইসলাম, উইমেন চেম্বারের সহসভাপতি মুনাল মাহবুব, জাপানের অনারারি কনসাল জেনারেল নুরুল ইসলাম, ফিলিপাইনের অনারারি কনসাল এম এ আউয়াল ও বাংলাদেশ ব্যাংকের আঞ্চলিক প্রধান হুমায়ুন কবির।

সভায় উপস্থিত ছিলেন চেম্বারের সহসভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালক জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মো. অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), এম এ মোতালেব, সরওয়ার হাসান জামিল, মো. রকিবুর রহমান (টুটুল), মোহাম্মদ জাহেদুল হক, এস এম শামসুদ্দিন, হাসনাত মো. আবু ওবাইদা ও মুজিবুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের ডেপুটি  পলিটিক্যাল/ইকোনমিক চিফ এলেন ওয়াং, ইকোনমিক অফিসার ইভারসন লং, ইপিবির পরিচালক কঙ্কণ চাকমা, বিডার উপপরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন প্রমুখ।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্য ওঠানামা ও পরিচালন কাজ পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বন্দর কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন। আজ বুধবার বার্নিকাট চট্টগ্রাম কোস্ট গার্ড পূর্ব জোনে যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক সহায়তায় জাহাজ মেরামত স্থাপনার নির্মাণকাজ উদ্বোধন করবেন।


মন্তব্য