kalerkantho


বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল

জ্যেষ্ঠতা ভেঙে ম্যাট্রনের দায়িত্ব, নার্সদের ক্ষোভ

বরিশাল অফিস   

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জ্যেষ্ঠতা ভেঙে নার্সিং সুপারিনটেনডেন্ট সেলিনা আক্তারকে ম্যাট্রন পদে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ফলে জ্যেষ্ঠ নার্সদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তাঁরা বলছেন, ম্যাট্রন পদে দায়িত্ব দেওয়ার ক্ষমতা মন্ত্রণালয়ের। নার্সিং সুপারিনটেনডেন্টের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনের আদেশ দেন ডিজি। কিন্তু জ্যেষ্ঠতা উপেক্ষা করে এই আদেশ দিয়েছেন শেবাচিম পরিচালক।

জানা যায়, শেবাচিম হাসপাতালে অন্তত ৩০ জন সিনিয়র স্টাফ নার্স রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ২১ জন নিজ বেতনে সুপারভাইজরের দায়িত্ব পালন করছেন। সেবা তত্ত্বাবধায়ক (ম্যাট্রন) মমতাজ বেগম প্রায় আট মাস আগে অবসরে গেছেন। তখন থেকেই ম্যাট্রন পদে উপসেবা তত্ত্বাবধায়ক (ডেপুটি ম্যাট্রন) গায়েত্রী সমাদ্দার দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনিও চলতি বছরের ৯ জানুযায়ি অবসরে যান। তাঁর স্থলে নার্সিং সুপারিনটেনডেন্ট সেলিনা আক্তারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

নার্সরা অভিযোগ করেছেন, দুই পদে দায়িত্ব পাওয়া সেলিনা আক্তার সিনিয়র স্টাফ নার্সের অন্তত চারজনের থেকে জুনিয়র। তাঁর সিনিয়র রয়েছেন রাশিদা বেগম, রেহনা বেগম, মাধু ঘোষ ও কল্পনা রানী। শেবাচিম হাসপাতালের একটি সূত্র জানিয়েছে, এঁদের দুজন দায়িত্ব পালনে শারীরিকভাবে অক্ষম। অন্য দুজনের চেয়ে শিক্ষাগত ও কর্মক্ষেত্রে সেলিনা আক্তার এগিয়ে রয়েছেন। যদিও সেলিনা আক্তার প্রায় এক বছর ধরে সুপারভাইজরের দায়িত্ব পালন করছেন।      

নার্সিং সুপারিনটেনডেন্ট সেলিনা আক্তার বলেন, ‘শেবাচিম হাসপাতালে প্রায় ৮৫০ জন নার্স রয়েছেন। তাঁদের তদারকির জন্য ২১ জন সুপারভাইজর রয়েছেন। সেবা তত্ত্বাবধায়ক (ম্যাট্রন) মমতাজ বেগম প্রায় আট মাস আগে অবসরে গেছেন। তখন ওই পদের জন্য আমি আবেদন করেছিলাম। আবেদনটি ডিজিতে পাঠানো হয়েছে। তখন থেকেই ম্যাট্রন পদে উপসেবা তত্ত্বাবধায়ক (ডেপুটি ম্যাট্রন) গায়েত্রী সমাদ্দার দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনিও চলতি বছরের ৯ জানুযায়ি অবসরে যান। সেই দিনই শেবাচিম পরিচালক দুই পদে আমাকে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন। পরের দিন দুই পদের দায়িত্ব বুঝে নেই।’

শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডা. মোস্তাফিজুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘চলতি বছরের ৯ জানুযায়ি গায়েত্রী সমাদ্দার অবসরে যান। হাসপাতালের কার্যক্রম চালিয়ে নিতে সম্পূর্ণ অস্থায়ী ভিত্তিতে নার্সিং সুপারিনটেনডেন্ট সেলিনা আক্তারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মহাপরিচালক যাঁকে নিয়োগ দেবেন, তিনিই পরবর্তী সময়ে ম্যাট্রনের দায়িত্ব পালন করবেন।’

জ্যেষ্ঠদের পাশ কাটিয়ে দুই পদের দায়িত্ব সেলিনাকে দেওয়ার ব্যাপারে পরিচালক বলেন, ‘জ্যেষ্ঠ হলেই কী সব কাজ পারেন। এই পদে কাজ করতে হলে শারীরিক সক্ষমতার প্রয়োজন। যাঁরা চাইছেন, তাঁদের দিয়ে এ দায়িত্ব চালিয়ে নেওয়া কষ্টসাধ্য।’   

নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) তন্দ্রা সিকদার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উপসেবা তত্ত্বাবধায়ক (ডেপুটি ম্যাট্রন) ও সেবা তত্ত্বাবধায়ক (ম্যাট্রন) প্রথম শ্রেণির পদ। মন্ত্রণালয় এই পদে পদায়ন করেন। সিনিয়র স্টাফ নার্স দ্বিতীয় শ্রেণির। অধিদপ্তরের এদের পদায়ন করেন। কোনো মতেই হাসপাতালের পরিচালক এই ক্ষেত্রে হস্তক্ষেপ করতে পারেন না।’

তিনি আরো বলেন, ‘বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপসেবা তত্ত্বাবধায়ক গায়েত্রী সমাদ্দার এ বছরের ৯ জানুয়ারি অবসরে গেছেন। সেই পদে এখন পর্যন্ত কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।’


মন্তব্য