kalerkantho


বেলকুচির মেয়রের চাঁদাবাজির মামলা

দুই যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার, প্রতিবাদে ভাঙচুর, আগুন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সিরাজগঞ্জের বেলকুচি পৌরসভার মেয়রের করা চাঁদাবাজির মামলায় উপজেলা যুবলীগের দুই নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁরা হলেন যুবলীগের আহ্বায়ক সাজ্জাদুল হক রেজা ও যুগ্ম আহ্বায়ক এস এম ওমর ফারুক সরকার।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে বেলকুচি উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে থেকে পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) একটি দল এই দুই নেতাকে গ্রেপ্তার করে। সিরাজগঞ্জ ডিবির পরিদর্শক (তদন্ত) রওশন আলী দুজনকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

এদিকে যুবলীগের দুই নেতাকে গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে তাঁদের সমর্থকরা বেলকুচি উপজেলা সদরের রাস্তা আটকে ২০-২২টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা, বাস ও ট্রাক ভাঙচুর করে এবং একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। বেলকুচি থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজা সরোয়ার এ তথ্য দিয়েছেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, গত ১২ ডিসেম্বর দুপুরে বেলকুচি উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক সাজ্জাদুল হক রেজার নেতৃত্বে একটি দল পৌরসভার সভা চলাকালে সেখানে হামলা চালায়। তারা সভাকক্ষে ঢুকে পিস্তল ধরে মেয়রের কাছে ১৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় মেয়র আশানুর বিশ্বাসকে লাঞ্ছিত করে তারা।

ওই দিন সন্ধ্যায় দ্রুত বিচার আইনের ধারায় মেয়র বেলকুচি থানায় অভিযোগ দিলেও ওসি সাজ্জাদ হোসেন মামলা নথিভুক্ত করেননি। এরপর গত ২৪ ডিসেম্বর মেয়র সিরাজগঞ্জ আমলি আদালতে অভিযোগ করেন। আদালতে মামলা নথিভুক্ত করার জন্য ডিবিকে নির্দেশ দেন।

মামলায় তিনজনের নাম উল্লেখ করা হয়। তাঁদের মধ্যে উপজেলা যুবলীগের নেতা রেজা ও ওমর ফারুক ছাড়া অন্যজন হলেন জেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাময়িক বহিষ্কৃত সহসভাপতি রিয়াদ হোসেন। এ ছাড়া আরো অজ্ঞাতপরিচয় ১২ ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

রেজা ও ওমর ফারুক দুজনই যথাক্রমে বেলকুচি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদেও আছেন।


মন্তব্য