kalerkantho


রূপা ধর্ষণ ও হত্যা মামলা

তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রী জাকিয়া সুলতানা রূপাকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় আদালতে গতকাল রবিবার অষ্টমবারের মতো সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মধুপুরের অরণখোলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কাইয়ুম সিদ্দিকী খান এবং ছোঁয়া পরিবহনের মালিকের স্বামী আক্তারুজ্জামান ও তাঁর ছেলে সাব্বির হোসেন আদালতে সাক্ষ্য প্রদান করেন। টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট নাছিমুল আক্তার নাছিম জানান, রূপা হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাইয়ুম সিদ্দিকী খান এবং ময়মনসিংহ-বগুড়া সড়কের ছোঁয়া পরিবহনের মালিকের স্বামী আক্তারুজ্জামান ও তাঁর ছেলে সাব্বির হোসেন আদালতে প্রথমে সাক্ষ্য প্রদান করেন। পরে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তাঁদের জেরা করেন। তবে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার জেরা শেষ হয়নি। আগামীকাল মঙ্গলবার জেরা শেষ করার জন্য আদালত দিন ধার্য করেন। সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা চলে।

গত বছরের ১৫ অক্টোবর চাঞ্চল্যকর এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মধুপুরের অরণখোলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কাইয়ুম সিদ্দিকী খান টাঙ্গাইলের বিচারিক হাকিম আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এতে গ্রেপ্তার হওয়া বাসের পাঁচজন শ্রমিকের বিরুদ্ধে রূপাকে ধর্ষণ ও হত্যার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়। পরে মামলাটি বিচারের জন্য ১৬ অক্টোবর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বদলি করা হয়। গত ২৫ অক্টোবর আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন।


মন্তব্য