kalerkantho


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন

খালেদা জিয়াকে কোনো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়নি

তিন ওকালতনামা কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আরেকটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে বলে যে খবর এসেছে তা নাকচ করে দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে তিনি সাংবাদিকদের কাছে বিষয়টি পরিষ্কার করে বলেছেন, খালেদা জিয়াকে কোনো মামলায় শোন অ্যারেস্ট দেখানো হয়নি। দুটি মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট রয়েছে। এ দুটি মামলার পরবর্তী তারিখ আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি ও আগামী ৪ মার্চ।

অন্যদিকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের কপি না পাওয়ায় গতকাল মঙ্গলবারও আপিল করতে পারেননি তাঁর আইনজীবীরা। খালেদা জিয়ার অন্যতম আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া কারাগারের সামনে গতকাল সাংবাদিকদের জানান, রায়ের কপি পেলে তাঁরা আগামীকাল বুধবার আপিল জমা দেওয়ার চেষ্টা করবেন। গতকাল বিকেলে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করে তাঁরা ব্যর্থ হয়ে কারা অধিদপ্তরে তিনটি ওকালতনামা জমা দিয়েছেন। কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ওকালতনামা খালেদা জিয়ার কাছে পাঠিয়ে স্বাক্ষর নিয়ে তাঁদের কাছে ফেরত পাঠানো হবে।

সানাউল্লাহ মিয়া সাংবাদিকদের আরো জানান, সামনে গ্যাটকো, বড়পুকুরিয়াসহ তিনটি মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরার তারিখ রয়েছে। তবে এসব মামলায় খালেদা জিয়াকে উপস্থিত থাকতে হয় না। আইনজীবীর মাধ্যমে তিনি হাজিরা দিতে পারেন।

গতকাল সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সাংবাদিকদের আরো বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় দায়ের করা বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতি মামলা ও তেজগাঁও থানায় দায়ের করা গ্যাটকো দুর্নীতি মামলা রয়েছে। এ দুটি মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট রয়েছে। বর্তমানে তিনি জামিনে রয়েছেন। তিনি যদি এসব মামলায় নিয়মিত হাজিরা দেন তাহলে তাঁকে আর গ্রেপ্তার দেখানো লাগবে না। এসব মামলায় তাঁর হাজিরা দেওয়ার বিষয়টি আদালত ও জেল কর্তৃপক্ষের ওপর নির্ভরশীল।

আরেক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়া দুই দুইবারের প্রধানমন্ত্রী। তাঁর সামাজিক মর্যাদা আছে। সব কিছু বিবেচনা করেই তাঁকে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে। নতুন কারাগারে ফিমেল ওয়ার্ড নেই। কাশিমপুর ঢাকা থেকে অনেক দূরে। এসব দিক বিবেচনা করে তাঁকে এ কারাগারে রাখা হয়েছে। জেল কোড অনুযায়ী তাঁর যেসব সুবিধা পাওয়ার কথা তার সব সুবিধাই দেওয়া হচ্ছে।’

 

 


মন্তব্য