kalerkantho


গাজীপুর সিটি নির্বাচন

কাউন্সিলর পদে বাতিল ২২ জনের মনোনয়নপত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষ হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৮৪ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাতিল হয়েছে তিনজনের। অন্যদিকে ৫৭টি সাধারণ ওয়ার্ডে ২৭৫ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাতিল হয়েছে ১৯ জনের।

হলফনামায় ত্রুটিপূর্ণ তথ্য দেওয়া, আয়কর সনদ সংযুক্ত না করা, তথ্য গোপন, ঋণ ও কর খেলাপের অভিযোগে এসব মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

এর আগে বাছাইয়ের প্রথম দিন এক মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। এখন বৈধ মেয়র প্রার্থী ৯ জন।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সংরক্ষিত ৬ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে কুলসুমের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে আয়করসংক্রান্ত কাগজপত্র ও হলফনামা যথাযথ পূরণ না হওয়ায়। ৯ নম্বর ওয়ার্ডে রওশনারা বেগমের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে আয়-ব্যয়ের উৎস এবং হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায়। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের তালিকাভুক্ত ঠিকাদার হওয়ার কারণে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের সুফিয়া আক্তারের।

সাধারণ ওয়ার্ডে যাঁদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে তাঁদের মধ্যে আছেন ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মো. রফিকুজ্জামানও। হলফনামায় তথ্য সঠিকভাবে পূরণ না করায় তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। ৭ নম্বর ওয়ার্ডে সাত প্রার্থীর মধ্যে জহিরুল ইসলাম ও আক্তার পালোয়ানের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। তাঁরা হলফনামায় পেশা উল্লেখ করেননি। ২২ নম্বর ওয়ার্ডে শাহজাহান সিরাজের মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে ঋণখেলাপির কারণে। ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের জাকির হোসেনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে আয়কর সনদ না দেওয়ায়। ৬ নম্বর ওয়ার্ডের আশরাফ হোসেনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে সিটি করপোরেশনের ৫১ হাজার টাকা বকেয়া কর পরিশোধ না করায় এবং আয়কর সনদ না দেওয়ায়। ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডে প্রার্থী ছিলেন দুজন। বাছাইকালে রঞ্জন ইসলাম রঞ্জুর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে হলফনামায় তথ্য গোপনের কারণে।

জাহাঙ্গীর দলীয় কার্যালয়ে, হাসান সরকার আদালতে : গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম গতকাল সোমবার ভিন্ন ভিন্ন কাজের মধ্য দিয়ে দিন পার করেছেন।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সকাল থেকে নগরীর হারিকেন সড়কের বাসায় বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে আসা নেতাকর্মীদের সঙ্গে সময় কাটান। দুপুরে তিনি শহরের দলীয় কার্যালয়ে সাবেক পৌর আওয়ামী লীগ আয়োজিত সভায় যোগ দেন। বিকেলে নগরীর ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে সুধীজনের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। সন্ধ্যায় টঙ্গীর বড় দেওড়া এলাকায় এবং পরে রাত পর্যন্ত টঙ্গীর দলীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের সময় দেন।

অন্যদিকে হাসান উদ্দিন সরকার টঙ্গী মডেল থানার বিস্ফোরকদ্রব্য আইনের মামলায় হাজিরা দিতে সকাল ১০টার দিকে আদালতে হাজির হন। এর আগে সকালে তিনি টঙ্গীর তিলারগাতী এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত একটি কারখানা ও বাড়ি পরিদর্শন করেন। বিকেলে আদালত থেকে টঙ্গীর বাসভবনে ফিরে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে আসা দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নির্বাচনী প্রস্তুতির অগ্রগতি বিষয়ে কথা বলেন।

 


মন্তব্য