kalerkantho


অভিনব কায়দায় শুল্ক জালিয়াতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



রাজধানীর একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিনব কায়দায় জালিয়াতির মাধ্যমে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পণ্য আমদানির তথ্য পেয়েছে শুল্ক মূল্যায়ন ও অডিটের একটি দল। ব্যাংকের কাগজ জালিয়াতির মাধ্যমে আমদানি ও পণ্য খালাস করার সময় এ প্রতারণা ধরা পড়ে। এ ঘটনায় ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।

আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানটির নাম এটিএন কমিউনিকেশন। ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানটি রাজধানীর পরীবাগের মোতালিব প্লাজায়। তারা মোবাইল ফোনের আমদানিকারক ও সরবরাহকারী হিসেবে নিবন্ধিত। কিন্তু আমদানিকারক ইউসিবিএলের গুলশান শাখায় তিনটি এলসি খোলার পর মোবাইল ফোন আমদানির কথা থাকলেও ঢাকা কাস্টম হাউসের এয়ারফ্রেইটে ছয়টি বিলের মাধ্যমে দুই ধরনের পণ্য খালাস নিয়ে শুল্ক ফাঁকি দেয়। আর আমদানিকারক মোবাইল ফোনের পরিবর্তে তিনটি বিলের মাধ্যমে ওষুধের কাঁচামাল শূন্য হারে খালাস করে নিয়েছে। অন্যদিকে মালামাল খালাস করার সময় মোবাইল ফোন দেখালেও ভুয়া কাগজ দাখিল করে মূল্য কম দেখিয়ে শুল্ক ফাঁকি দিয়েছে।

সূত্র জানায়, এ ঘটনা তদন্তের একপর্যায়ে ব্যাংকের মূল দলিল পর্যালোচনা করে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটি কেবল মোবাইলের জন্য এবং প্রতি পিস ৯.৫ ও ৭.৩ মার্কিন ডলার দেখিয়েছে। কিন্তু কাস্টম হাউসের তথ্যে দেখা যায়, প্রতি পিস ছয় ডলার করে শুল্কায়ন করা হয়েছে। এতে প্রকৃত মূল্য অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। অন্যদিকে ওষুধের জন্য কোনো এলসি খোলা না হলেও ভুয়া কাগজ দাখিল করে তা শূন্য শতাংশ হারে খালাস নিয়েছে।

 



মন্তব্য