kalerkantho


লালপুরে যুবলীগের মোটর শোভাযাত্রায় আ. লীগের হামলা

নাটোর প্রতিনিধি   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



নাটোরের লালপুর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামে গতকাল মঙ্গলবার যুবলীগের মোটরসাইকেল শোভাযাত্রায় হামলা চালিয়েছে আওয়ামী লীগ কর্মীরা। পাঁচটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়েছে।

লালপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্টু জানান, আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা রয়েছে। এতে যোগ দিতে কেন্দ্রীয় যুবলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ঢাকা থেকে নাটোর হয়ে রাজশাহীতে যাবেন। এমন সংবাদে লালপুর উপজেলা যুবলীগ নেতাকর্মীরা কেন্দ্রীয় নেতাদের সংবর্ধনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সকাল ১০টার দিকে উপজেলা যুবলীগ কার্যালয় থেকে নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা নিয়ে নাটোরের উদ্দেশে রওনা দেন। রামকৃষ্ণপুরে পৌঁছলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা তাদের বাধা দেয় এবং মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। পরে তারা সেই পথ থেকে পালিয়ে অন্য পথ দিয়ে নাটোর শহরের কানাইখালীতে জেলা যুবলীগ সভাপতির ব্যক্তিগত অফিসে যায়। সংবাদ পেয়ে জেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা কানাইখালীতে জড়ো হয়। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আহাদ আলী সরকার, জেলা যুবলীগ সভাপতি বাশিরুর রহমান খান চৌধুরী এহিয়া, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল্লাহ হেল সাকিব বাকী ও নাটোর নবাব সিরাজউদ্দৌলা সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বুলবুল আহমেদ।

জেলা যুবলীগের সভাপতি বাশিরুর রহমান খান চৌধুরী এ হামলার নিন্দা জানিয়ে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসাহাক আলী হামলা বা মোটরসাইকেল ভাঙচুরের কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘লালপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্টুর বিতর্কিত কার্যকলাপের জন্য তাঁকে সম্প্র্রতি বহিষ্কারের প্রস্তাব করা হয়েছে। মঙ্গলবার ৮-১০টি মোটরসাইকেল উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আফতাব হোসেন ঝুলফুর বাড়ির কাছ দিয়ে যাওয়ার সময় তারা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতিসহ অন্য নেতাদের বিরুদ্ধে আপত্তিকর স্ল্লোগান দেয়। এ সময় সেখানে বসে থাকা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা তাদের ধাওয়া করেছে। কিন্তু মোটরসাইকেলে থাকায় তারা নির্বিঘ্নে চলে গেছে। ’

এ বিষয়ে লালপুর থানার ওসি আবু ওবায়েদ বলেন, ‘লালপুরে এমন কোনো ঘটনা জানা নেই। যদি কিছু ঘটে থাকে, তাহলে থানায় অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’


মন্তব্য