kalerkantho


তিতাসে গণধর্ষণের অভিযোগ

গ্রেপ্তার ১, নির্যাতিতার পরিবারকে হুমকি

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



কুমিল্লার তিতাসে এক কিশোরীকে (১৪) রাস্তা থেকে জোর করে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে চারজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে। অন্যতম আসামি ফজলে রাব্বিকে গত সোমবার রাতে গ্রেপ্তার ও ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটে গত শনিবার উপজেলার কলাকান্দি ইউনিয়নে। আসামিপক্ষ নির্যাতিত কিশোরীর পরিবারকে গ্রাম ছাড়া করার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, কলাকান্দি ইউনিয়নের এক নারীর সঙ্গে খানেবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা ও কলাকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যের (মেম্বার) মামলা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। এর জেরে শনিবার ওই নারীর মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়। রবিবার মেয়েটি গণধর্ষণের অভিযোগে খানেবাড়ীর ফজলে রাব্বি (২২), সুজন (১৫), রাসেল মিয়া (১৪) ও জাহিদকে (১৭) আসামি করে তিতাস থানায় মামলা করে। এদিকে এ ঘটনায় মামলা করার আগে ও পরে ওই ইউপি সদস্য নেপথ্যে থেকে চার গ্রামের মানুষের উপস্থিতিতে একাধিকবার ঘটনা রফাদফার চেষ্টা করেন বলে জানা গেছে। সবশেষ আড়াই লাখ টাকায় সালিসে রফার চেষ্টা করা হয়। তবে অভিযুক্ত চারজনের পরিবার রাজি না হওয়ায় ঘটনা রফা হয়নি। ভিকটিমের মা বলেন, ‘স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা করা হয়েছিল।

ওরা না মানায় বাধ্য হয়ে মামলা করেছি। আমি অসহায় বিধায় আসামিপক্ষ আমাকে গ্রাম ছাড়া করতে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। ’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. আল আমিন ভূঁইয়া বলেন, ‘ভিকটিমের মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হয়েছে। রিপোর্ট না পেলে কিছু বলা যাচ্ছে না। ঘটনায় জড়িত অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যরা পলাতক। ’


মন্তব্য