kalerkantho


কালিয়াকৈরে বনকর্তা গ্রামবাসী সংঘর্ষ, গুলি

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে গ্রামবাসীর হামলা, সংঘর্ষ ও গুলির  ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলার কাচিঘাটা রেঞ্জের খইলসাজানি বন বিটের রামচন্দ্রপুর এলাকায় জমি দখলকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। এতে গ্রামবাসীর হাতে অন্তত পাঁচ বন কর্মকর্তা-কর্মচারী আহত হয়েছে।

আহত বনপ্রহরী জহিরুলকে উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল সন্ধ্যায় কালিয়াকৈর থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

এলাকাবাসী, বন অফিস ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খইলসাজানি বন বিট অফিসের আওতাধীন কাথাচুরা এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে জামান মিয়া গত শুক্রবার বনের জমিতে একটি ঘর তোলেন। বিট কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গিয়ে বনের জমিতে গড়ে তোলা ঘর ভেঙে দিয়ে জামান মিয়াকে আটক করেন। তাঁর নামে মামলা দিয়ে তাঁকে বন আদালতের মাধ্যমে গাজীপুর হাজতে পাঠান। এ ঘটনার জের ধরে গতকাল সকালে ওই এলাকায় আবারও বনের জমি দখল হচ্ছে শুনে দুপুরে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যান। রামচন্দ্রপুর এলাকার শামছুল পলাবন মিয়ার ছেলে নিজাম উদ্দিনকে আটক করেন। নিজামকে আটক করার খবর পেয়ে স্থানীয় ইব্র্রাহীম সিকাদারের নেতৃত্বে সুরুজ্জামান, মাইন উদ্দিনসহ ৫০-৬০ জন গ্রামবাসী বন কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালায়। উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। একপর্যায়ে আত্মরক্ষার জন্য বন কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে পাঁচ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হলে গ্রামবাসী ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। বন র্কমকর্তারা আহত অবস্থায় ফিরে আসেন। গ্রামবাসীর হামলায় খইলসাজানি বন বিট কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম, বনপ্রহরী জহিরুল ইসলাম, আবুল কাশেম, রনজিত কুমার মণ্ডল, সাইদুর রহমান আহত হয়েছেন। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে তিনটি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেওয়া হয়। বিট কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম গতকাল সন্ধ্যায় কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ করেছেন।

গ্রামবাসী ইব্রাহিম সিকদার বলেন, ‘বিটের লোকজন এসে এলাকার লোকজনকে ধরে মারধর শুরু করলে তাদের সঙ্গে সংঘর্ষ ঘটে। এ সময় তারা একজনকে আটক করে এবং ফাঁকা গুলি করলে আমরা চলে যাই।’

খইলসাজানি বনবিট কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বনের জমি দখল করে ঘর নির্মাণ করার খবর পেয়ে গিয়ে দুজনকে আটক করি। এ কারণে ইব্রাহীম সিকদারের নেতৃত্বে প্রায় অর্ধশত লোক এসে  আমাদের ওপর হামলা চালায়। মারধর করে মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।’

কাচিঘাটা রেঞ্জ কর্মকর্তা এ কে এম তৌহিদুর রহমান বলেন, ‘ ইব্রাহিম সিকদারের বিরুদ্ধে আরো চারটি বন মামলা বন আদালতে বিচারাধীন। তাদের হাত থেকে বাঁচার জন্য পাঁচ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়তে হয়েছে।’

কালিয়াকৈর থানার উপপরিদর্শক ফাতেমা বলেন, সন্ধ্যায় এ ঘটনায় একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে।


মন্তব্য