kalerkantho


পড়াশোনা না করে সন্ধ্যার পর বাড়ির বাইরে, সাবধান!

আলমডাঙ্গায় ৫২ ছাত্র আটক

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



সন্ধ্যার পর একজন ছাত্র থাকবে পড়ার টেবিলে, নিজের ঘরে। এটাই হওয়া উচিত। কিন্তু অনেক ছাত্র সন্ধ্যার পর আড্ডা দেয় বাইরে, চায়ের দোকানে। বাইরে থাকা ছাত্রদের ঘরে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছে চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ। কাজ শুরু হয়েছে আলমডাঙ্গা থানা এলাকায়।

গত রবিবার সন্ধ্যার পর আলমডাঙ্গা শহরে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ৫২ ছাত্রকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। রাতেই অভিভাবকরা মুচলেকা দিয়ে তাদের বাড়ি নিয়ে যান। ছেলেরা উসখুস করলেও পুলিশের এ উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন অভিভাবকরা।

অভিভাবকরা জানান, লেখাপড়া ফাঁকি দিয়ে অনেক শিক্ষার্থী বিভিন্ন কৌশলে সন্ধ্যার পর অনেক রাত পর্যন্ত বাইরে থাকে। কারো কারো ক্ষেত্রে তা অভ্যাসে পরিণত হয়। কেউ কেউ ‘বন্ধুর বাড়ি পড়তে যাচ্ছি’ কিংবা ‘স্যারের বাড়ি যাচ্ছি’ এসব কথা বলেও বাড়ির বাইরে আড্ডা দেয়। অনেক ক্ষেত্রে অভিভাবকরা সন্তানের খোঁজ নিতে গাফিলতি করেন।

আলমডাঙ্গা থানার পরিদর্শক আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান জানান, সম্প্রতি চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান যুক্তিহীনভাবে বাইরে থাকা ছাত্রদের ঘরে ফিরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নেন। এ বিষয়ে নির্দেশনা দেন। এ অনুযায়ী কয়েক দিন আগে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে শহরে শিক্ষার্থীদের সন্ধ্যার পর বাইরে আসার ব্যাপারে সতর্ক করে মাইকিং করা হয়। অভিভাবকদেরও নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। এর পরও কাজ হয়নি।

রবিবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন স্থানে আড্ডা দেওয়া ৫২ ছাত্রকে আটক করে থানায় আনা হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে রাতেই অনেক অভিভাবক ও জনপ্রতিনিধি আলমডাঙ্গা থানায় আসেন। তাঁদের সবার সামানে ছাত্রদের শপথ পড়ানো হয়। শিক্ষার্থীরা অঙ্গীকার করে, ‘সন্ধ্যার পর আমরা পড়ার টেবিলে থাকব। খারাপ সব কিছু বর্জন করব।’ থানায় আসা অভিভাবকরা মুচলেকা দিয়ে সন্তানদের বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যান।

পরিদর্শক বলেন, ‘অভিভাবকরা সন্তানের খোঁজ না রাখলে সন্তানসহ তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে রেলপাড়ার অভিভাবক হাফিজুল ইসলাম বলেন, ‘সন্ধ্যার পর আড্ডা দিতে গিয়ে কেউ কেউ নেশাদ্রব্যে আশক্ত হয়ে পড়ে। বয়স্কদের দেখলেও তারা তোয়াক্কা করে না। পুলিশের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়।’


মন্তব্য