kalerkantho


ঝিনাইদহে দরিদ্রদের চাল বিতরণে অনিয়ম

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি   

১৪ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



ঝিনাইদহে দরিদ্রদের ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় গতকাল মঙ্গলবার থেকে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়। পরিবারপ্রতি ৩০ কেজি করে চাল দেওয়ার নির্দেশ থাকলেও ২০-২৫ কেজির বেশি দেওয়া হচ্ছে না।

স্থানীয়দের অভিযোগ, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার সুরাট ইউনিয়নের অতি দরিদ্র ৩০৯টি পরিবারের মধ্যে প্রতি মাসে ১০ টাকা কেজি দরে ৩০ কেজি করে চাল বিতরণ করার জন্য একটি তালিকা করা হয়। ইউনিয়নের নির্ধারিত ডিলার আমিরুল ইসলাম মন্টু গত মঙ্গলবার সুরাট বাজারে চাল বিতরণ শুরু করেন। পরিবারপ্রতি ৩০ কেজির বদলে ২০-২৫ কেজি করে চাল দেওয়ায় বিতরণের প্রথম দিনেই উপকারভোগী ও স্থানীয়রা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। প্রকাশ্যে ডিলারের এ দুর্নীতির প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভ করে তারা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। এ সময় ডিলার আমিরুল ইসলাম মন্টু উপস্থিত ছিলেন না।

সুরাট ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য খান মোকাদ্দেস জানান, প্রতিটি পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়ার কথা। সেখানে মাত্র ২০-২৫ কেজি চাল দেওয়া হচ্ছে। বাকি চাল আত্মসাৎ করে কালোবাজারে বিক্রি করার পাঁয়তারা করছে সংশ্লিষ্টরা।

লাউদিয়া গ্রামের আসমানী খাতুন বলেন, ‘আমাকে ৩০ কেজি চাল দেওয়ার কথা। সেখানে মাত্র ২০ কেজি চাল দিয়েছে।’ ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম বলেন, ‘সরকার চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য এ কর্মসূচি চালু করেছে। এ নিয়ে দুর্নীতি করলে অবশ্যই তদন্ত সাপেক্ষে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে ডিলার আমিরুল ইসলাম মন্টুর সঙ্গে ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

 


মন্তব্য