kalerkantho


নীলফামারীতে তরুণীর মাথা ন্যাড়ার ঘটনায় আটক ৩

নীলফামারী প্রতিনিধি   

১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



নীলফামারী সদরের রামনগর ইউনিয়নের চাঁদেরহাট কলেজপাড়া গ্রামে প্রেমের সম্পর্কের জেরে গ্রাম্য সালিসে হিন্দু সম্প্রদায়ের এক তরুণীর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো গ্রামের মৃত সুরেন চন্দ্র রায়ের ছেলে দিনবন্ধু রায় (৪৩), মৃত ছতিশ চন্দ্র রায়ের ছেলে পুস্প রায় (৪৫) ও প্রেম কুমার রায়ের ছেলে সদানন্দ রায় (৩০)।

নীলফামারী সদর থানার ওসি বাবুল আকতার বলেন, ‘ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ঘটনার কথা স্বীকার করেছে। ওই তরুণীর মাকেও থানায় ডাকা হয়েছে, এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

জানা গেছে, ২০১৩ সাল থেকে জেলা শহরের পরচুলা তৈরির একটি কারখানায় শ্রমিকের কাজ করেন ওই তরুণী। বাড়ি থেকে কর্মস্থলে যাওয়া আসার পথে পরিচয়ের সূত্র ধরে অটোবাইকচালক রবিউল ইসলামের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে প্রায় দেড় বছর আগে। বিষয়টি বুঝতে পেরে রবিউলকে অন্যত্র বিয়ে করায় তাঁর পরিবার। এর পরও তাদের মধ্যে সম্পর্ক বজায় থাকে এবং গত ২ জুলাই ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে রবিউলকে বিয়ে করে বাড়ি ছাড়েন ওই তরুণী। গত ১০ জুলাই রাতে গ্রাম্য সালিসের মাধ্যমে বাবার বাড়িতে ফেরত আনা হয় তরুণীকে। ভোরের দিকে ফের হিন্দু ধর্মে ফিরিয়ে আনার জন্য হিন্দু সমাজপতিতের সালিসে ওই তরুণীর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া হয়।

এমন বিধানে ওই তরুণীর অভিযোগ, ‘ইচ্ছার বিরুদ্ধে গ্রামের মাতব্বররা আমার মাথা ন্যাড়া করে দেন। রাজি না হওয়ায় মারধরও করা হয় আমাকে। আমি তাঁদের সব কথা মানতে রাজি আছি, কিন্তু মাথা ন্যাড়ার বিষটি মানতে পারছি না।’

 



মন্তব্য