kalerkantho


৩৬ বছরের বিরোধ নিষ্পত্তি

ঝালকাঠি প্রতিনিধি   

১৩ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



খুপরিঘরে জীবন কাটছিল হিন্দু পরিবারটির। জমি থাকতেও আদালতের নির্দেশ মান্য করে ঘর উত্তোলন করতে পারেনি। কখনো বৃষ্টিতে ভিজে একাকার, কখনো রোদের তীব্রতায় জ্বলে ওঠে প্রাণ। মাটির ঘরে ৩৬ বছরের জীবনযুদ্ধ। প্রতিপক্ষের সঙ্গে কথাও বন্ধ সেই থেকে। বিরোধ গড়ায় আদালত পর্যন্ত। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে দুই পরিবারের বিরোধ মিটে গেল। চোখের কোণের অশ্রুজল মুছে যাচ্ছে নিরঞ্জন চক্রবর্তীর। পুরনো বিরোধ নিষ্পত্তিতে খুশি প্রতিবেশী নজরুল ইসলাম ওরফে ইউনুস মাঝিও। দুজনে কুশল বিনিময় করলেন জনসমক্ষে। একে অন্যের হাতে ফুল দিয়ে জড়িয়ে ধরলেন। এ সব কিছুই সম্ভব হয়েছে ঝালকাঠি জেলা পুলিশের সহযোগিতায়। আজ বৃহস্পতিবার সকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) এম এম মাহামুদ হাসানের কার্যালয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ নিষ্পত্তি হয়।

নিরঞ্জন চক্রবর্তী বলেন, ‘আমার চোখের পানি মুছে দিয়েছে পুলিশ। আমি এখন নিশ্চিন্তে ঘর তুলে বসবাস করতে পারব। আমি ঘর তুললে এখন আর কেউ বাধা দেবে না। ইউনুস মাঝির সঙ্গে আর কোনো বিরোধ নেই। সব কিছুই ভুলে গেছি।’

নজরুল ইসলাম ওরফে ইউনুস মাঝি বলেন, ‘জমিত ৩৬ বছর ধরে বিব্রতকর অবস্থায় ছিলাম। মামলা-হামলা কত কিছুই না হয়েছে। সব কিছুই মিটিয়ে দিয়েছে পুলিশ। আমরা আগের মতো একে অন্যকে ভালোবাসব। আমাদের মধ্যে আজ থেকে কোনো বিরোধ নেই।’

মগড় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. এনামুল হক শাহিন বলেন, বিরোধ নিষ্পত্তি হওয়ায় দুটি পরিবারের মধ্যেই শান্তি বয়ে আনবে। তাদের মধ্যে মামলারও অবসান ঘটবে। যে যার মামলা তুলে নেবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।



মন্তব্য