kalerkantho


গভীর সাগরে ভারতীয় জেলেদের উৎপাত

তোফায়েল আহমদ, কক্সবাজার   

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



গভীর সাগরে ভারতীয় জেলেদের উৎপাত

সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে কক্সবাজারের জেলেরা ভারতীয় জেলেদের হামলা ও লুটপাটের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ ওঠেছে। অভিযোগে বলা হয়, ভারতের মাছ আহরণের অত্যাধুনিক নৌযানগুলো দলবেঁধে বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ জলসীমায় অনুপ্রবেশ করে জেলেদের ওপর হামলে পড়ে।

গত এক সপ্তাহে কমপক্ষে কক্সবাজারের আটটি মাছধরা নৌকা ভারতীয় জেলেদের হামলার শিকার হয়েছে।

এমনিতেই গেল অক্টোবর মাসে সাগরে মাছধরা বন্ধ ছিল। এ কারণে প্রায় পুরো মাস সাগরে মাছ ধরতে পারেননি জেলেরা। সম্প্রতি মাছধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পর কক্সবাজারের জেলেরা যখন নতুন উদ্যমে সাগরে মাছ ধরতে নামেন তখনই হামলার শিকার হচ্ছেন।

এর আগে বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশ জলসীমায় ছিল জলদস্যুদের উৎপাত। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে জলদস্যুদের উৎপাত একটু কমেছে। এর বদলে বাংলাদেশ জলসীমায় অনুপ্রবেশ করছে ভারতীয় ট্রলিং জেলেরা। ভারতীয় ট্রলিংগুলো উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইঞ্জিনচালিত হওয়ায় অত্যন্ত দ্রুতগতিতে জলসীমায় অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকার করে।

এ প্রসঙ্গে কক্সবাজার মৎস্য ব্যবসায়ী ঐক্য সমবায় সমিতির সভাপতি ওসমান গণি টুলু গতকাল মঙ্গলবার বলেন, ‘সাগরের খুলনা সুন্দরবন এবং মহীপুর এলাকায় কক্সবাজার উপকূলের জেলেরা মাছ ধরতে গিয়ে আচমকা অনুপ্রবেশকারী ভারতীয় জেলেদের হামলার শিকার হচ্ছেন।

’ তিনি জানান, গত তিন দিনে সাগরের ওই এলাকায় মাছ ধরতে গিয়ে তাঁর মালিকানাধীন একটি এবং তাঁর ভাই নাসিরুদ্দিন বাচ্চুর একটি নৌকা হামলার শিকার হয়েছে। ভারতীয় জেলেরা কক্সবাজার উপকূলের এসব ছোট নৌযানে হামলা চালিয়ে মাছও লুট করেছে।

কক্সবাজার মৎস্য ব্যবসায়ী ঐক্য সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক জানে আলম পুতু জানান, বাংলাদেশের জলসীমায় ঝাঁকে ঝাঁকে ভারতীয় জেলেদের ট্রলিং ঢুকে খুব স্বল্প সময়ে মাছধরে চলে যায়। এ সময় সাগরে মাছধরার নৌযান পেলেই ভারতীয় জেলেরা হামলা চালিয়ে মাছও লুট করে।

কক্সবাজার শহরের নতুন ফিশারিপাড়ার আবদুর রশিদ কম্পানির একটি নৌকা এবং এফবি রাশেল নামের আরেকটি নৌকা দুদিন আগে ভারতীয় জেলেদের হামলার শিকার হয়। ভারতীয় জেলেরা হামলা চালিয়ে নৌকার মাছসহ জাল ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

কক্সবাজার জেলা ইঞ্জিনচালিত মাছধরা নৌকা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, গভীর সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে কক্সবাজার উপকূলের জেলেরা ভারতীয় জেলেদের হামলার শিকার হচ্ছেন। তিনি এ বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রণজিত কুমার বড়ুয়া বলেন, ‘স্থানীয় জেলেরা ঘটনাগুলো আমাকে জানিয়েছেন। ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রশাসনকে বিষয়টি জানানো হবে। ’


মন্তব্য