kalerkantho


চট্টগ্রাম বন্দর

জেটিতে ঢোকার সময় চরে আটকা বিদেশি জাহাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বন্দর জেটিতে প্রবেশের সময় পণ্যভর্তি একটি কন্টেইনার জাহাজ কর্ণফুলী নদীর মোহনার মুখে চরে আটকা পড়েছে। গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় এ ঘটনার পর আর কোনো জাহাজ জেটিতে ঢোকতে পারেনি।

দুর্ঘটনার পরই জাহাজটি উদ্ধারের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সোমবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সফল হয়নি। দুর্ঘটনায় পড়া জাহাজটির নাম ‘এমভি টিজনি’। এতে পণ্যবাহী ১ হাজার ১২৬টি কন্টেইনার রয়েছে। যেখানে আছে তৈরি পোশাকশিল্পের কাঁচামাল ও বাণিজ্যিক পণ্য। জাহাজটি হাইকোর্টের অ্যাডমিরালটি বিভাগের আদেশে গত শনিবার আটক করেছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। আমদানি পণ্য নামানোর জন্য সেটি জেটিতে ঢোকার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব ওমর ফারুক বলেন, ‘ঘন কুয়াশার কারণে জাহাজটি কর্ণফুলী নদী চ্যানেলের (জাহাজ চলাচলের পথ) একপাশে চরে আটকে যায়। এ ঘটনার কারণে বন্দরে জাহাজ চলাচল বন্ধ হয়নি। তবে কুয়াশার কারণে জাহাজ চলাচলে সময়সূচি সাময়িক পরিবর্তন হয়েছে। আর ভাটার কারণে অন্য জাহাজগুলো জেটিতে ঢোকতে পারেনি।’

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, সিঙ্গাপুর থেকে আমদানিপণ্য নিয়ে সোমবার চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে পৌঁছায় ‘এমভি টিজনি’। সকালে জোয়ারের সময় দুটি জাহাজ জেটিতে ভেড়ার পর তৃতীয় জাহাজটি কর্ণফুলীর মোহনার মুখে ১ নম্বর বয়ার কাছে চরে আটকে যায়। দুর্ঘটনার পরই জাহাজটি ভাসিয়ে উদ্ধারের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বন্দর। জাহাজটির পানির নিচের অংশ বা গভীরতা (ড্রাফট) ৮ দশমিক ৮৫ মিটার। ঘটনাস্থলে পানির গভীরতা জাহাজের গভীরতার চেয়ে কম থাকায় চলার পথেই এটি চরে আটকে যায়।

জাহাজটির স্থানীয় প্রতিনিধি জিপি শিপিং লাইনস লিমিটেডের ব্যবস্থাপক শ্যামা প্রসাদ চৌধুরী বলেন, ‘বন্দর কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে উদ্ধারকারী একাধিক টাগবোট পাঠিয়েছে। জাহাজটি ভাসানোর জন্য ছয় ঘণ্টা পরের জোয়ারের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।’

চট্টগ্রাম বন্দরের একজন পাইলট বলেন, ‘কুয়াশার প্রকোপ থাকায় দুদিন ধরে বন্দর জেটিতে কোনো জাহাজ ঢোকতে পারেনি। এ কারণে বার্থিং অনুমতি নিয়েও বেশ কটি জাহাজ বহির্নোঙর থেকে জেটিতে প্রবেশ করতে পারেনি। সোমবার অন্তত ছটি জাহাজ প্রবেশের শিডিউল ছিল। কিন্তু দুর্ঘটনার পর সেটি আর সম্ভব হয়নি।’

জানা গেছে, ২০১৬ সালে আলু রপ্তানির একটি ঘটনার মামলায় আদালত কন্টেইনারবাহী ছয়টি জাহাজকে গত শনিবার আটক করে। এসব জাহাজের মধ্যে এমভি ‘টিজনি জাহাজ’ রয়েছে। জাহাজটি জেটিতে ভিড়ে আমদানি পণ্য নামিয়ে বহির্নোঙরে অপেক্ষা করত। আদালতের পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই জাহাজকে সেখানেই অবস্থান করতে হবে।


মন্তব্য