kalerkantho


বাঁশখালীতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী

শেখ হাসিনার জন্ম না হলে দেশের অগ্রগতি হত না

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



শেখ হাসিনার জন্ম না হলে দেশের অগ্রগতি হত না

বাঁশখালীতে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। ছবি : কালের কণ্ঠ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশেরও জন্ম হত না বলে মন্তব্য করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। তিনি বলেন, ‘আর শেখ হাসিনার জন্ম না হলে দেশের অগ্রগতি হত না। মানসম্মত শিক্ষার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলার ঘরে ঘরে শিক্ষার আলো ছড়াতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। শিশুদের বিনা মূল্যে বই, শতভাগ উপবৃত্তি, শিক্ষক প্রশিক্ষণ, মাল্টিমিডিয়া শিক্ষাসহ ব্যাপক শিক্ষা কারিকুলাম চালু করেছেন। শিশুরা এখন নিরক্ষর থাকছে না। তাদের সুপ্ত মেধা বিকশিত হয়ে দেশের কল্যাণে ও সম্পদে পরিণত হচ্ছে।’

গতকাল সোমবার বাঁশখালী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মতবিনিময় সভা ও মা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. হাবিবুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য দেন বাঁশখালী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কে এম মোস্তাক আহমেদ। আরো বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম বিভাগের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সোলতান মিয়া, বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান মোল্লা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মফিজুর রহমান পলাশ, বাঁশখালী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল গফুর, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শ্যামল দাশ, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও বাহারছড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক শংকর প্রসাদ দাশ, প্রধান শিক্ষক রাজ মোহাম্মদ আজাদ, প্রধান শিক্ষক মো. শহীদুল্লাহ প্রমুখ।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার অনুষ্ঠানে ১৭ জন মা অভিভাবকের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। সবার কাছে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া, শিক্ষকদের আচরণ, স্কুল ম্যানেজিং কমিটির ব্যবস্থাপনা ও স্কুলের পরিবেশ সম্পর্কে নানাবিধ বিষয় জানতে চান এবং উত্তর দেন।

উপস্থিত মা-দের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ‘একজন প্রকৃত মা-সাজগোজের মতো শিশুর জীবন জ্ঞানের আলোতে সাজাতে পারেন। আপনারা সন্তানদের দেশের জন্য সাজিয়ে দিন। যেন এসব সন্তান দেশের সম্পদ হয়। শিশুদের মনে দেশপ্রেম আর জ্ঞান আহরণের প্রাণশক্তি যেন জাগ্রত হয়।’

তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, ‘মনে রাখবেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন দেশের একজন প্রকৃত শিক্ষক। তিনি ৬ দফা আন্দোলনের মাধ্যমে মুক্তিকামী দেশবাসীর মাঝে স্বাধীনতার চেতনা ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন। সেই শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে প্রকৃত দেশপ্রেমিকরা বুকের তাজা রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলেন। তাই প্রকৃত ও আদর্শ শিক্ষক হতে হলে বঙ্গবন্ধু দেশবাসীকে যে দেশপ্রেম শিখিয়ে গেছেন সেই আদর্শে অনুপ্রাণিত হতে হবে। তাহলেই আমরা গর্বিত জাতি হয়ে বিশ্ব দরবারে সম্মান রাখতে পারব।’


মন্তব্য