kalerkantho


সাহায্যের আবেদন জানালেন সহপাঠীরা

চিকিৎসকের ‘ভুলে’ সংকটাপন্ন অভি বাঁচতে চান

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



চিকিৎসকের ‘ভুলে’ সংকটাপন্ন অভি বাঁচতে চান

সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজে মাস্টার্স শেষবর্ষের (হিসাববিজ্ঞান) শিক্ষার্থী অভিজিৎ মজুমদার অভিকে বাঁচাতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন সহপাঠীরা। সোমবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানানো হয়। এ সময় অভির পরিবারের সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. তাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘অভি মেধাবী শিক্ষার্থী। সড়ক দুর্ঘটনায় তাঁর শিক্ষাজীবন থমকে গেছে। চিকিৎসার খরচ মেটাতে গিয়ে তাঁর পরিবার নিঃস্ব হয়ে গেছে।’

গত ২৩ জানুয়ারি চট্টগ্রাম-নাজিরহাট সড়কের হাটহাজারীর মুহুরীহাট বটতল এলাকায় দুটি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে মারাত্মক আহত হন অভি। ওই দিন তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ২৮ নম্বর নিউরোসার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। জরুরিভিত্তিতে তাঁর অপারেশনের প্রয়োজন হলেও চিকিৎসকরা জানান, প্রায় দেড় মাস সময় লাগবে। নিরুপায় হয়ে একমাত্র ছেলে অভিকে বাঁচাতে জরুরি অপারেশন করাতে পরদিন নগরের বেসরকারি রয়েল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সহপাঠীরা জানান, চমেক হাসপাতালের নিউরোসার্জারি বিভাগের একজন অধ্যাপক অপারেশন করলেও ওই চিকিৎসকের ‘অবহেলা ও গাফিলতির’ কারণে অভির শরীরের একপাশে পচন ধরে। এরপর একই মেডিক্যালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের আরেক অধ্যাপককে দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। তাঁর চিকিৎসায়ও কিছুটা সমস্যা দেখা যায়। বর্তমানে অভির শরীরের একাংশ অবশ হয়ে আছে। একাধিকবার মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়। তাঁর উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন বলে চিকিৎসকরা জানান। কিন্তু পরিবারের কাছে এখন আর টাকা-পয়সা নেই। ইতোমধ্যে অসহায় বাবা ছেলেকে বাঁচাতে ৮ লক্ষাধিক টাকা খরচ করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে অভির বাবা কাজল মজুমদার বলেন, ‘আমার তিন মেয়ে ও এক ছেলের মধ্যে অভি সবার ছোট। তাকে নিয়ে পরিবারের সবার আশা-ভরসা। কিন্তু তার যদি কিছু হয় তাহলে আমরা কি নিয়ে বাঁচব? আমার ছেলে বাঁচতে চায়।’

‘অভি সুস্থ হয়ে আবার ক্যাম্পাসে গিয়ে যাতে পড়ালেখা করতে পারে সৃষ্টিকর্তার কাছে সবাই তাঁর জন্য আশীর্বাদ করবেন। টাকার জন্য এখন উন্নত চিকিৎসা করাতে পাচ্ছি না। অভির বন্ধুরা হাসপাতালে গিয়ে তাকে দেখে চিকিৎসার জন্য যেভাবে এগিয়ে এসেছেন সেই রকম যদি সমাজের বিত্তশালীরা এগিয়ে আসেন তাহলে আমার ছেলে অভিজিৎ পাবেন নতুন জীবন। ছেলের অনেক কষ্ট হচ্ছে। তার দিকে বাবা হয়ে আমার তাকাতে বড় কষ্ট হচ্ছে। অভিকে বাঁচাতে আপনাদের সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। এটা আমি ও আমার পরিবারের আকুল আবেদন। এখন হাসপাতালেও অনেক টাকা বকেয়া রয়েছে। এই টাকাগুলো কোথা থেকে দেব তা বুঝতে পারছি না।’-যোগ করেন অভির বাবা।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন অনুপ ঘোষ টিটু, রিমন মুহুরী, কানু দাশ, কৃষ্ণ বণিক, দেবাশীষ চৌধুরী, শতদল বড়ুয়া প্রমুখ। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : ডাচ্ বাংলা ব্যাংক, গোলপাহাড় মোড় শাখা, চট্টগ্রাম, সঞ্চয়ী হিসাব নং-১২৯১০৩০০৩৬০১৫।



মন্তব্য