kalerkantho


সোনাগাজীতে একই রাতে দুই বাড়িতে ডাকাতি, আহত ৫

ফেনী প্রতিনিধি   

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



সোনাগাজীর উপকূলীয় এলাকায় একই রাতে দুই বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাত দলের হামলায় নারীসহ পাঁচজন আহত হন। ডাকাত দল ২০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, জিনিসপত্রসহ প্রায় ১২ লাখ টাকার মালামাল লুট করে।

রবিবার দিবাগত রাতে উপজেলার চরচান্দিয়া ইউনিয়নের মধ্যম চরচান্দিয়া ও ওলামাবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে গত ১৫ দিনে সোনাগাজীতে আটটি ডাকাতির ঘটনা ঘটল। এর মধ্যে চরচান্দিয়া ইউনিয়নে দুটি ও নবাবপুর ইউনিয়নে ছয়টি ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, রবিবার দিবাগত রাতে মধ্যম চরচান্দিয়া গ্রামের রুহুল আমিনের নতুন বাড়িতে ৮ থেকে ১০ জনের মুখোশধারী ডাকাতদল ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে। অস্ত্রের মুখে পরিবারের সবাইকে জিম্মি করে। ঘরের পাঁচটি আলমারির তালা ভেঙে ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ ১ লাখ টাকা এবং দুটি মোবাইল ফোন,

কাপড়-চোপড়সহ ৫ লাখ টাকার মালামাল লুট করে। এ সময় পরিবারের লোকজন চিৎকার করলে ডাকাতেরা দুলাল হোসেন (৪৭), বেলাল হোসেন (৪২), কামাল উদ্দিন (৩৭), আমেনা বেগমসহ (৩০) পাঁচজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে।

এছাড়া একই রাতে চরচান্দিয়া ইউনিয়নের ওলামাবাজার সংলগ্ন ফকির বাড়ির আবদুল মোমিনের ঘরে ৮ থেকে ১০ জনের মুখোশধারী সশস্ত্র ডাকাত ঢুকে পরিবারের সবাইকে জিম্মি করে। তিনটি আলমিরার তালা ভেঙে ১৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ ২ লাখ টাকা এবং ২টি মোবাইল ফোনসহ সাত লাখ টাকার জিনিসপত্র লুট করে এরা।

সোমবার সকালে সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জেড এম কামরুল আনাম, ভাইস চেয়ারম্যান আজিজুল হক হিরন, থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হারুনুর রশিদ ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মিলন দুই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশ পরিদর্শক হারুনুর রশিদ বলেন, ‘ডাকাতি হওয়া মালামাল উদ্ধার ও ডাকাতদের গ্রেপ্তারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।’


মন্তব্য