kalerkantho


সেই স্কুলভবনের ছাদ ও বিম ভেঙে ফেলা হচ্ছে

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০



সেই স্কুলভবনের ছাদ ও বিম ভেঙে ফেলা হচ্ছে

১৪ মে কালের কণ্ঠের দ্বিতীয় রাজধানীতে ‘বাঁশখালীতে স্কুলভবন নির্মাণে অনিয়ম’ শিরোনামে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশের পর কর্তৃপক্ষের টনক নড়েছে। নির্মাণাধীন ছনুয়া পশ্চিম মাতব্বরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনের দোতলার ফাটল ধরা ছাদ ও বিম মঙ্গলবার ভেঙে ফেলার কাজ শুরু করেছেন ঠিকাদার।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল কাদের বলেন, ‘স্কুলভবন নির্মাণে অনিয়ম নিয়ে পত্রিকায় সংবাদ পরিবেশনের পর কর্তৃপক্ষ জোড়াতালি দিয়ে ফাটল অংশ মেরামত করছে।’

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. ইউছুফ বলেন, ‘নির্মাণকাজে দুর্নীতির অভিযোগের পরও জোড়াতালি দিয়ে কাজ শেষ করার ব্যাপারে ঠিকাদারকে সহযোগিতা করছেন প্রকৌশলীরা।’ তবে বাঁশখালী উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী মো. রাকিবুল ইসলাম বলেন, ‘আমি সার্বক্ষণিক উপস্থিত থেকে কাজ তদারক করছি।’

‘এখন তো ঘটনাস্থলে নেই?’-এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাদের লোকবল কম। তাই অন্য জায়গায় কাজ তদারকি করছি। আমি এই মাত্র সেখান থেকে এসেছি।’

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স এন এস এন্টারপ্রাইজের মালিক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘শ্রমিকরা আমাকে শেষ করে দিল। এখন ফাটল অংশ পুনঃনির্মাণ করা হচ্ছে।’

উল্লেখ্য, ১ কোটি ১৪ লাখ টাকা ব্যয়ে বাঁশখালীর ছনুয়া পশ্চিম মাতব্বরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চারতলা ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। নির্মাণকাজে নিম্নমানের পাথর, সিমেন্ট ও লোহার রড ব্যবহারের অভিযোগ ওঠেছে।


মন্তব্য