kalerkantho


জামাল-সাইফ কেউ জেতেনি

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



জামাল-সাইফ কেউ জেতেনি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শেখ জামাল-সাইফ স্পোর্টিংয়ের মধ্যে দারুণ দ্বৈরথ হওয়ার কথা ছিল, হয়েছেও। তবে গোলহীন এক ম্যাচ।

গোলশূন্য ড্র ম্যাচের পর শেখ জামালের আর শীর্ষে ওঠা হলো না।   ৮ ম্যাচ শেষে ২০ পয়েন্ট নিয়ে তারা দ্বিতীয় স্থানে। আর সাইফ ১৭ পয়েন্ট নিয়ে ঢাকা আবাহনীর সঙ্গী হয়েছে।

শেখ জামাল ও সাইফ স্পোর্টিংয়ের লড়াই লিগের অন্যতম আকর্ষণ হলেও পার্থক্যে এগিয়ে থাকে সাইফ। তবে মাঠের খেলায় দেখা যায়নি ওই অগ্রগামিতা। প্রতিপক্ষের তারকার সঙ্গে সামনতালে লড়েছে শেখ জামালের তারুণ্য। অনেক ক্ষেত্রে সামর্থ্যের চেয়েও বেশি খেলেছে। তাতে শুধু স্কোরলাইনে নয়, ম্যাচের সামগ্রিকতায়ও পুরোপুরি সমতা। কারো একাধিপত্যের গল্প নয় এটা।

দুই পক্ষই সুযোগ পেয়েছে, মিস করেছে। বারে লাগিয়েছে। ম্যাচ শেষের বিশ্লেষণ দাঁড়াচ্ছে অ্যাটাকিং থার্ডে দুই পক্ষেরই ঠিকঠাক কিছু হয়নি।

প্রথমার্ধের আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের মধ্যে সাইফ স্পোর্টিংয়ের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ ছিল। ৩১ মিনিটে কলম্বিয়ান হেম্বার ভ্যালেন্সিয়ার শট ক্রসবার ফিরিয়ে দেয়। জামাল অবশ্য পায়নি সে রকম ওপেন চান্স। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দাপটে খানিকটা এগিয়ে থাকে শেখ জামাল। গোলেও তার প্রাপ্তি হতে পারত। হয়নি গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোর কারণে। ৪৯ মিনিটে নাইজেরিয়ান সলোমনের হেডটি তিনি দারুণ সেভ করেছেন। মিনিটখানেকের মধ্যেই আবার কর্নার কিকে সম্ভাবনা জাগান আফসার। দুর্ভাগ্য তাঁর, ড্রপ হেড গিয়ে লাগে ক্রসবারে। ৫৩ মিনিটে জাভেদ খানকে গোল হাতছানি দিয়েছিল। শট নিতে দেরি করায় সুযোগ হাতছাড়া হয়ে যায়। প্রতিপক্ষের শুরুর দাপট শেষে সাইফ স্পোর্টিং আবার গুছিয়ে খেলতে শুরু করে। কয়েকটা ভালো মুভ হলেও অ্যাটাকিং থার্ডে খেলেছে তারা এলোমেলো ফুটবল। ৬৩ মিনিটে কলম্বিয়ান হেম্বার ভ্যালেন্সিয়া বাইলাইন থেকে পোস্টের সামনে বল তুলে দিলেও জুয়েল রানা ঠিকঠাক হেড করতে পারেননি। আর শেখ জামাল সামর্থ্যের চেয়ে ভালো খেললেও খামতির জায়গা গাম্বিয়ান মমোদু বা-র নিষ্প্রভ উপস্থিতি। ম্যাচটা সব দিক থেকে সমতায় থাকলেও ৮৬ মিনিটে শেখ জামাল ডিফেন্ডার খান মোহম্মাদ তারা লাল কার্ড দেখেছেন হেম্বারকে লাথি মাারার অপরাধে।

দিনের অন্য ম্যাচে আরামবাগ ভালো খেলেই জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। ২-১ গোলে তারা হারিয়েছে ফরাশগঞ্জকে।


মন্তব্য