kalerkantho


চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নকে ছাড়াই বিশ্বকাপ

কান্নায় বিদায় কিংবদন্তির

১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



কান্নায় বিদায় কিংবদন্তির

পা দুটি সরছিল না। গোলপোস্ট থেকে মাঠ ছাড়ার সময় মনে হচ্ছিল, পাড়ি দিচ্ছেন অনন্ত পথ।

ছলছলে চোখে বাঁধ দিয়েছিলেন কিছুক্ষণ। ক্যামেরার সামনে আসতেই ভেঙে পড়ল সেটা। ফুঁপিয়ে কাঁদছিলেন ইতালিয়ান কিংবদন্তি জিয়ানলুইজি বুফন। অশ্রুসিক্ত হয়ে ঘোষণা দিলেন আন্তর্জাতিক ফুটবল ছাড়ার, ‘আমার শেষ ম্যাচের সঙ্গে বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতে না পারার ব্যর্থতা মিশে রইল, এটা হতাশার। ’

দুই দশকের ক্যারিয়ারে ১৭৫ ম্যাচ খেলেছেন বুফন, যা ইতালির জার্সিতে রেকর্ড। জিতেছেন ২০০৬ বিশ্বকাপ। খেলেছেন পাঁচটি বিশ্বকাপ, চারটি ইউরো আর কনফেডারেশনস কাপে দুইবার। ইতালি রাশিয়ার টিকিট পেলে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ছয় বিশ্বকাপ খেলার নজির গড়তেন সর্বকালের অন্যতম সেরা এই গোলরক্ষক। তাই আগাম ঘোষণা দিয়েছিলেন, রাশিয়া বিশ্বকাপের পর খুলে রাখবেন বুটজোড়া।

কিন্তু হায়, কে জানত রাশিয়ায়ই যাওয়া হবে না চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইতালির। বুফনের বেশি খারাপ লাগছে পুরো দেশের জন্য, ‘আমি শুধু নিজের জন্য নই, সব ইতালিয়ানের জন্যই দুঃখিত। দেশের ফুটবলের জন্য এটা হতাশার। আমরা এমন একটা জিনিস অর্জনে ব্যর্থ হলাম, যা দেশের ফুটবলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে পারত। এটাই আফসোসের। ’ এবার নতুন করে শুরুর পালা। ইতালি কি পারবে? আশা ছাড়ছেন না কিংবদন্তি বুফন, ‘ইতালির ফুটবলের অবশ্যই ভবিষ্যৎ রয়েছে। কারণ আমরা খারাপ সময়ের পর ঘুরে দাঁড়াতে জানি । ’

জাতীয় দলের হয়ে ১৭৫ ম্যাচ যেমন সর্বোচ্চ, তেমনি নেতৃত্বও দিয়েছেন সবচেয়ে বেশি ৭৯ ম্যাচ। তাঁর ১৭৫ ম্যাচ আন্তর্জাতিক ফুটবলে চতুর্থ সর্বোচ্চ ও ইউরোপিয়ানদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। ক্যারিয়ারের সেরা অর্জন ২০০৬ বিশ্বকাপ জয়। সেবার রেকর্ড পাঁচ ম্যাচে কোনো গোল হজম করেননি তিনি। পুরো বিশ্বকাপে তাঁকে ফাঁকি দিয়ে বল জালে জড়ায় মাত্র দুইবার, সেটাও ‘ওপেন প্লে’তে নয়। এর একটি আত্মঘাতী, আরেকটি পেনাল্টি থেকে। এ জন্যই বেশির ভাগ বিশেষজ্ঞ বুফনকে স্বীকৃতি দিয়েছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা গোলরক্ষকের। বিদায়বেলায় টেনিস তারকা বরিস বেকারের মূল্যায়ন, ‘সর্বকালের অন্যতম সেরা। ’ অন্যতম সেরা হয়েই বুফন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন ফুটবল ইতিহাসে। এএফপি


মন্তব্য