kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

পুরো ম্যাচ হলে আমরাই জিততাম

২০ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



পুরো ম্যাচ হলে আমরাই জিততাম

তাঁর গতকাল ঢাকায়ই থাকার কথা ছিল না। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে বৃষ্টি আইনে যুব এশিয়া কাপের সেমিফাইনালে পাকিস্তানের কাছে হেরে বিদায় নেওয়ায় একটু আগেভাগেই দেশে ফিরতে হয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে।

এই দলটির অধিনায়ক সাইফ হাসান ফিরেই যোগ দিয়েছেন বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি খুলনা টাইটানসের অনুশীলনে। সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এই তরুণ যুব এশিয়া কাপের পাশাপাশি কথা বললেন বিপিএলের রোমাঞ্চ নিয়েও

 

প্রশ্ন : মাত্রই যুব এশিয়া কাপ খেলে আসার অভিজ্ঞতা বিপিএলে কতটা কাজে লাগবে বলে মনে করেন?

সাইফ হাসান : হ্যাঁ, এশিয়া কাপে ব্যাটসম্যানরা ফর্মে ফিরেছে। ব্যাটসম্যানরা প্রায় সবাই পারফরম করেছে। তবে এমন নয় যে ব্যক্তিগতভাবেই শুধু কেউ কেউ ভালো করেছে। দল হিসেবেও আমরা খুব ভালো ক্রিকেট খেলেছি। সেখানে ভালো করে এসেই আমরা এখন বিপিএলে। ম্যাচ পেলে সুযোগটা কাজে লাগানোর চেষ্টা থাকবে আমাদের। এখন পুরো মনোযোগটাই থাকবে বিপিএলে।

প্রশ্ন : পাকিস্তানের কাছে হারতে হলো বৃষ্টি আইনে।

পুরো ম্যাচ হলে জেতার ব্যাপারে কতটা আত্মবিশ্বাসী ছিলেন?

সাইফ : পুরো ম্যাচে কিন্তু আমাদেরই আধিপত্য ছিল। একটা সময় পর্যন্ত তো আমরাই এগিয়ে ছিলাম। বৃষ্টি আসার আগের কয়েকটি ওভারে বেশি কিছু রান করে ওরা সুবিধাজনক অবস্থায় চলে যায়। আমাদের দুর্ভাগ্যই বলতে পারেন। তা ছাড়া আবহাওয়ার ওপর তো আমাদের নিয়ন্ত্রণ নেই। পুরো ম্যাচ হলে হয়তো আমরাই জিততাম।

প্রশ্ন : বিপিএলে নিজের জন্য কী লক্ষ্য নির্ধারণ করেছেন?

সাইফ : লক্ষ্য তো অবশ্যই সুযোগ পেলে পারফরম করা। সেই চেষ্টাই থাকবে। মালয়েশিয়ায় (এশিয়া কাপে) যে রকম খেলে এসেছি, সেটিরই ধারাবাহিকতা বজায় রাখার চেষ্টা করব।

প্রশ্ন : যুব এশিয়া কাপ থেকে সরাসরি বিপিএলে। আপনার মতো তরুণরা এই আসরটি কিভাবে দেখে?

সাইফ : বিপিএল অবশ্যই নিজেকে মেলে ধরার চমৎকার একটি প্ল্যাটফর্ম। গত বছর আফিফ (অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সহ-অধিনায়ক) এই আসরে নিজেকে দারুণভাবে মেলে ধরতে পেরেছিল। আমাদের মতো তরুণদের কাছে বিপিএলের এটিই সবচেয়ে ভালো দিক। সুযোগ পেলে নিজেকে খুব ভালোভাবেই মেলে ধরতে চাইব।

প্রশ্ন : কিন্তু এবার তো পাঁচ বিদেশি খেলানোর নিয়মে আপনার মতো তরুণদের সুযোগ কমে গেছে অনেকটাই।

সাইফ : তবুও বলব আমাদের জন্য খুব ভালো একটি অভিজ্ঞতা হবে। জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের পাশাপাশি বিভিন্ন দলে আছেন বিদেশিরাও। তাঁদের সঙ্গে থেকেও তো খুব ভালো অভিজ্ঞতা অর্জন সম্ভব। আমিও এখান থেকে যতটা সম্ভব নেওয়ার চেষ্টা করব।

প্রশ্ন : খুলনার কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনের কাছ থেকেও নিশ্চয়ই অনেক কিছু শেখার চেষ্টা থাকবে?

সাইফ : অবশ্যই। উনি গ্রেট একজন ব্যাটসম্যান।   ছোটবেলা থেকেই ওনার ব্যাটিং অনুসরণ করি আমি। কাজেই ওনাকে পাওয়ার পর যথাসম্ভব অনেক কিছু শিখে নেওয়ার চেষ্টা তো থাকবেই।


মন্তব্য