kalerkantho


অ্যাপোয়েলের মাঠে স্বস্তির খোঁজে রিয়াল

২১ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



অ্যাপোয়েলের মাঠে স্বস্তির খোঁজে রিয়াল

চ্যাম্পিয়নস লিগটা ‘রিয়াল মাদ্রিদের টুর্নামেন্ট’ বলে গর্ব করেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। তবে লস ব্লাংকোদের এই মুহূর্তে এমনই লেজেগোবরে অবস্থা যে চ্যাম্পিয়নস লিগ আর লা লিগা নেই, তাদের কাছে জয়টাই আসল কথা।

আজ অ্যাপোয়েলের মাঠে সেই জয় নিয়ে অবশ্য ইউরোপীয় আসরের গ্রুপ পর্বটা তারা পেরিয়ে যেতে পারে।

বরুশিয়া ডর্টমুন্ড আবার তা যেন না হয় সেই প্রার্থনা করছে। রিয়াল জিতলে যে তাদের পত্রপাঠ বিদায় এবারের আসর থেকে। না জিতলে একটা ক্ষীণ আশা থাকবে, তার জন্যও আবার সিগনাল ইদুনা পার্কে তাদের আজ হারাতে হবে টটেনহাম হটস্পারকে। মওরিসিও পচেত্তিনোর দল কি সে সুযোগ দেবে, রিয়ালকে হারিয়ে শেষ ষোলো নিশ্চিত করার পর জার্মানির বিমান ধরেছে তারা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যে। গত মৌসুমে রিয়ালের এমনই দাপট ছিল যে ডর্টমুন্ড, টটেনহাম একই গ্রুপে পড়ার পরও গ্রুপটিকে ‘গ্রুপ অব ডেথ’ বলার সুযোগ ছিল না। সেই রিয়াল টটেনহামের কাছে হেরে ঠিকই লড়াইটা জমিয়ে দেয়। কিন্তু ডর্টমুন্ড সেই সুযোগ নিতে পারলে তো! রিয়ালের মতোই বা তার চেয়েও বাজে সময় পার করছে তারা। বুন্দেসলিগায় সেপ্টেম্বর মাসটা শেষ করেছিল তারা বায়ার্ন মিউনিখের চেয়ে ৫ পয়েন্ট এগিয়ে শীর্ষে থেকে।

সেই তারা এখন লিগের পাঁচ নম্বরে, শেষ পাঁচ ম্যাচ থেকে নিতে পেরেছে মাত্র ১ পয়েন্ট। চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে ছিটকে যাওয়ার পথ তৈরি হয়েছে অ্যাপোয়েলের সঙ্গে দুইবারের দেখায় একবারও তাদের হারাতে না পেরে।

মাদ্রিদ থেকে সাড়ে চার হাজার কিলোমিটার পেরিয়ে হলেও সাইপ্রাসের এই দলটিকে হারানো কঠিন হওয়ার কথা নয় রিয়ালের জন্য। সমর্থকরা জয়ের প্রার্থনার পাশাপাশি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো আর করিম বেনজেমার গোলের আশায়ও নিশ্চয় থাকবেন। রোনালদো ইউরোপীয় আসরের চার ম্যাচে এরই মধ্যে ৬ গোল করলেও লা লিগার ফর্ম এবং টটেনহামের কাছে হারের হতাশা তাঁকে পেছনে ফেলতে হবে। বেনজেমার ফর্ম লিগে যেমন, ইউরোপেও তা-ই, প্রায় ১০০০ মিনিট খেলে এই মৌসুমে মাত্র ২ গোল ফরাসি স্ট্রাইকারের। রিয়ালের জন্য আরো শঙ্কার হলো, বাজে সময়ে দলে যে অন্তর্দ্বন্দ্বের আভাস। গোল না পাওয়া নিয়ে বেনজেমার তীর নাকি রোনালদোর দিকে আর রোনালদো তো আগে থেকেই সতীর্থদের অভিযুক্ত করে আসছেন তাঁকে বল দেওয়া হচ্ছে না বলে। অ্যাপোয়েলের মাঠে আজই হয়তো এসবের সুরাহা হবে না, তবে একটা জয় নিশ্চিতভাবেই দলে স্বস্তির হাওয়া বইয়ে দেবে।

চ্যাম্পিয়নস লিগের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আজ সেভিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে লিভারপুল। র‌্যামন সানচেস পিজুয়ানে আজ যারাই জিতবে তারাই যাবে নকআউট পর্বে। ড্র হলেও অলরেডদের সুযোগ থাকবে ২০০৮-০৯-এর প্রথমবারে শেষ ষোলোয় যাওয়ার। সে ক্ষেত্রে স্পার্তাক মস্কোকে হারতে হবে মারিবোরের মাঠে। সিরি ‘এ’র শীর্ষে থাকা নাপোলির সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ, শেষ ষোলোর আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলেও আজ হারাতে হবে শাখতার দোনেত্স্ককে। ওদিকে ঘরের মাঠে ফেইনুর্দকে হারিয়ে ম্যানচেস্টার সিটি ‘এফ’ গ্রুপের শীর্ষস্থানই নিয়ে নিতে পারে, কারাবাগকে হারিয়ে চেলসিরও সুযোগ শেষ ষোলোয় ওঠার। এএফপি


মন্তব্য