kalerkantho


শেখ জামালের ড্র

৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



শেখ জামালের ড্র

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শেষ মুহূর্তের গোলে ড্র করেছে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব। ৮৮ মিনিটে সলোমন কিংয়ের গোলে তারা ১-১ গোলে ড্র করেছে রহমতগঞ্জের সঙ্গে। সুবাদে ১৫ ম্যাচে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে এবং রহমতগঞ্জ ১৩ পয়েন্ট নিয়ে নবমে। অন্য ম্যাচে অগাস্টিন ওয়ালসনের জোড়া গোলে মোহামেডান হারিয়েছে ফরাশগঞ্জকে।  

নতুন কোচ মাহবুব হোসেন রক্সির অধীনে শেখ জামাল জয়ের ধারাতেই ছিল। দুটি ম্যাচ জয়ের পর গতকাল কোচ দেখলেন মুদ্রার ওপিঠ, ‘আমাদের বাজে দিন গেছে। গোল খাওয়ার পর আমরা গুছিয়ে খেলতে শুরু করি, বেশ কিছু সুযোগ পেয়েছিলাম গোলের। শেষ পর্যন্ত একটি গোল হওয়ায় ম্যাচটি ড্র করতে পেরেছি। পুরো ৩ পয়েন্ট হারাতে হয়নি, এটাই ভাগ্য। ’ ম্যাচটি জিততে পারলে তারা উঠে যেত পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে কাল তারা ছন্দে ছিল না, বরং শুরুতে রহমতগঞ্জের আধিপত্য ছিল বেশি।

সেটার সুফল পায় তারা ২৭ মিনিটে দাউদা সিসের গোলে। এই গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড বাঁদিক ধরে আক্রমণে ওঠেন, গায়ে গায়ে ইয়াসিন লেগে থাকলেও শেষরক্ষা করতে পারেননি। এই গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড গোলরক্ষক মিতুল হাসানকে পরাস্ত করে এগিয়ে নেন রহমতগঞ্জকে। ৩৫ মিনিটে এই গোল শোধ করে জাহিদ পারভেজ খেলায় ফেরাতে পারতেন দলকে, কিন্তু মেরেছেন তিনি ক্রসবার উঁচিয়ে।

বিরতির পর শেখ জামাল গোল শোধে মরিয়া হয়ে ওঠে। অন্যদিকে রহমগঞ্জের গোল ধরে রাখার লড়াইয়ে। দুই রকম লড়াইয়ের যোগ হয় রেফারির বিতর্কিত বাঁশি। তাই ম্যাচ শেষে দুই দলই রেফারি ভুবনমোহন তরফদারের সমালোচনা করেছেন। শেখ জামাল দাবি করেছে, ‘রেফারিং ভালো হলেও ম্যাচটি আমরা জিততে পারতাম। ’ বেশ কিছু সুযোগ নষ্টের পর ৮৮ মিনিটে তারা পায় কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা। বক্সের একটু বাইরে থেকে গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড সলোমন কিংয়ের ডান পায়ের দুর্দান্ত এক ফ্রি-কিকে বল রহমতগঞ্জের জালে জড়িয়ে সমতা ফেরান। ইনজুরি টাইমে অবশ্য ম্যাচ জেতার মতো সুযোগ পেয়েছিল। মোমোদু বা’র চমৎকার এক ক্রসে রাকিব পোস্টের সামনে থেকে গোলরক্ষক সোজা হেড করে এই সুযোগ নষ্ট করেছেন।

দিনের অন্য ম্যাচে তিন হারের পর জয় পেয়েছে মোহামেডান, তারা একচেটিয়া খেলে ২-০ গোলে হারিয়েছে ফরাশগঞ্জকে। প্রথমার্ধে গোলহীন থাকার পর ৪৬ মিনিটে গোল করেন অগাস্টিন ওয়ালসন। ৫৭ মিনিটে এই হাইতিয়ান পেনাল্টি থেকে দ্বিতীয় গোল করলে ম্যাচ জেতা হয়ে যায় অনেকখানি। ফরাশগঞ্জ ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করে গেছে এরপর। দু-দুটি শট ক্রসবারে লাগায় সেটা হয়ে ওঠেনি আর।


মন্তব্য