kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

লিগটাকে নিয়মিত করতে হবে

হকি ফেডারেশনের অ্যাডহক কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আবার নতুন করে কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন আব্দুস সাদেক। জাতীয় দলের মানোন্নয়ন ও ঘরোয়া হকি নিয়মিত করাসহ বেশ কিছু চ্যালেঞ্জ তাঁর সামনে। কাল এশিয়ান বাছাই নিয়ে প্রস্তুতি শুরুর প্রথম দিন আব্দুস সাদেক সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন সেসব প্রসঙ্গেই

১৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



লিগটাকে নিয়মিত করতে হবে

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : নতুন অ্যাডহক কমিটি হলো, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আপনার প্রথম কাজ কী হবে?

আব্দুস সাদেক : অবশেষে একটি অ্যাডহক কমিটি হয়েছে। সব ক্লাবের প্রতিনিধি আছে এই কমিটিতে। আমার প্রথম কাজ হবে সাত-আট দিনের মধ্যে লিগ কমিটি করে দলবদলের তারিখ ঘোষণা করা। আমি চাইছি এশিয়ান গেমসের বাছাইয়ের (৯-১৬ মার্চ) আগেই দলবদল হোক। তবে প্রিমিয়ার লিগ শুরু করাটা বাছাইয়ের আগে তো সম্ভব নয়। তবে বাছাইয়ের পর ৮-১০ দিনের মধ্যেই মৌসুম শুরু হবে।

প্রশ্ন : বছরজুড়ে হকি নিয়ে আর কী পরিকল্পনা থাকবে আপনার?

সাদেক : লক্ষ্য আছে লিগটাকে নিয়মিত করা। ১০ বছরে পাঁচ লিগ—এই প্রবণতা বন্ধ করতে হবে। তা ছাড়া করপোরেট টুর্নামেন্ট করার চিন্তা মাথায় আছে। অন্য নিয়মিত টুর্নামেন্টগুলো তো থাকবেই। সারা বছর হকিটা মাঠে রাখতে চাই। এই বছর জাতীয় দলের অনেকগুলো খেলা রয়েছে। এশিয়ান গেমস বাছাই, এশিয়ান গেমস, এশিয়ান চ্যালেঞ্জ কাপ, যুব দলের যুব অলিম্পিক বাছাই। আন্তর্জাতিক ম্যাচও আয়োজন করতে চাই।

প্রশ্ন : অ্যাডহক কমিটির অন্যান্য সদস্য নিয়ে আপনার কী মত?

সাদেক : এতে আমার কোনো হাত নেই। আমি আগের দিনও জানতাম না কে আসছে না আসছে। আর কমিটি যেমনই হোক এটা তো স্থায়ী কমিটি নয়। তবে যে কদিনই থাকুক এই অ্যাডহক কমিটি, আমি চাই এই সময়ের মধ্যেই একটি হকির বর্ষপঞ্জি তৈরি করে ফেলা।

প্রশ্ন : বেশ কিছু বড় ক্লাব হকিতে আসতে চায় বলে জানা গেছে, এ নিয়ে আপনার কী ভাবনা?

সাদেক : হ্যাঁ, শেখ জামাল, সাইফ স্পোর্টিং, শেখ রাসেলের মতো কিছু দলও হকিতে আসতে চায়। তাদের দ্বিতীয় বিভাগে খেলার প্রস্তাব দিয়েছিল ফেডারেশন। কিন্তু তারা রাজি হয়নি, তারা সরাসরি প্রিমিয়ার ডিভিশনে খেলতে চায়। কিন্তু যত দূর জানি, বিধি অনুযায়ী সেভাবে নেওয়ার বোধ হয় সুযোগ নেই। প্রিমিয়ার সম্ভব না হলে এদের করপোরেট টুর্নামেন্টও আমরা আয়োজন করতে পারি। সাইফ, শেখ রাসেলের মতো কিছু ক্লাব এগিয়ে এলে, এদিকে সেনাবাহিনী, নৌবাহিনীর মতো দলগুলো তো আছেই, এদের নিয়ে একটা লিগ করা সম্ভব।

প্রশ্ন : করপোরেট লিগ হলে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ কেন নয়, ভারত সেভাবেই হকিতে এগিয়ে যাচ্ছে?

সাদেক : আমাদের এখানের ক্লাবগুলোর সংগতি খুব কম। চার-পাঁচটা ক্লাব ছাড়া সেভাবে কোনোটি খরচই করতে পারে না।


মন্তব্য