kalerkantho


স্বাধীনতা কাপের সাদামাটা শুরু

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



স্বাধীনতা কাপের সাদামাটা শুরু

ক্রীড়া প্রতিবেদক : দল গড়ার সময় কর্মকর্তাদের মাথায় থাকে লিগ। লিগের আগে টুর্নামেন্ট হলে তাতে লিগের প্রস্তুতিই চলে। লিগ শেষে টুর্নামেন্টের জন্য খেলোয়াড়-কর্মকর্তাদের অনুপ্রাণিত হতেও বিশেষ কিছু লাগে। যেমন সুপার কাপে ছিল কোটি টাকার প্রাইজ মানি। এবারের পাঁচ লাখ টাকার প্রাইজ মানির স্বাধীনতা কাপে সেই আকর্ষণ কোথায়! বিদেশিদের ছাড়া হচ্ছে টুর্নামেন্টটা। তাতে অবশ্য স্থানীয়রা উজ্জীবিত হতে পারেন। কিন্তু লিগের দুই দিন পরই শুরু হওয়া এ আসরটায় দেখা গেল তারাও ক্লান্ত। তাতে চট্টগ্রাম আবাহনী ও সাইফ স্পোর্টিংয়ের মতো দুটি বড় দলের ম্যাচ হলো সাদামাটা, শেষ মুহূর্তের খানিক ঝলকে স্কোরলাইন ১-১।

সহজ সব সুযোগ নষ্টে গোলশূন্যভাবেই শেষ হতে চলেছিল ম্যাচ। অতিরিক্ত সময়ে বক্সের ওপর থেকে মাসুকের চমৎকার এক ভলিতে এগিয়ে যায় চট্টগ্রাম আবাহনী। কিন্তু লিডটা তারা ধরে রাখতে পারেনি পরের মুহূর্তেই বক্সের ভেতর সাইফের ফরোয়ার্ড ইব্রাহিমকে ফাউল করা হলে। স্পটকিক থেকে জুয়েল রানা করেন ১-১। সাইফ এই টুর্নামেন্টটা খেলছে এএফসি কাপের প্রস্তুতির মধ্যে। টিসি স্পোর্টসের বিপক্ষে ২৩ তারিখের ম্যাচের জন্য নিরবচ্ছিন্ন ক্যাম্পের পরিকল্পনা তাদের ভেস্তে গেছে লিগের শেষ দিকে এসে ফেডারেশন এই স্বাধীনতার কাপের তারিখ ঘোষণা করলে। এএফসি কাপের জন্য চট্টগ্রাম আবাহনীরই বেশ কিছু খেলোয়াড়কে তারা দলে নিয়েছে; কিন্তু এ টুর্নামেন্টের জন্য ওই খেলোয়াড়দেরও এখন তারা ক্যাম্পে পাচ্ছে না। কাল অবশ্য দুই দলের খেলোয়াড় তালিকাতেই তারকা খেলোয়াড়দের অনুপস্থিতি চোখে লেগেছে।

তুলনায় লিগ থেকে অবনমিত ফরাশগঞ্জ উপভোগ্য ম্যাচ উপহার দিয়েছে। ফরহাদের জোড়া গোলে ২-১ গোলে তারা হারিয়েছে ব্রাদার্সকে। ম্যাচের ২২ ও ৮৪ মিনিটে মনার ২ গোল। তাতে দারুণ এক জয়েরই অপেক্ষা ছিল ফরাশগঞ্জের। কিন্তু ৮৯ মিনিটে বিশাল দাস ব্যবধান কমান ব্রাদার্সের হয়ে।


মন্তব্য