kalerkantho


৫০০-র চূড়ায় রাজ্জাক

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



৫০০-র চূড়ায় রাজ্জাক

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এবারের বিসিএল তিনি শুরু করেছিলেন ৪৯০ উইকেট নিয়ে। প্রথম ম্যাচেই ১০ উইকেটের সেই দূরত্ব ঘুচিয়ে অনন্য মাইলফলকে পৌঁছে যেতে যেতেও যাননি আব্দুর রাজ্জাক। সেই ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেটের পর দ্বিতীয় ইনিংসে আরো তিনটি নিয়ে অপেক্ষায় থাকতে হয় একসময় বাংলাদেশ দলের স্পিন জোয়াল নিজের কাঁধে টানা এই বাঁহাতি স্পিনারকে। ওয়ালটন মধ্যাঞ্চলের বিপক্ষে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচের তৃতীয় দিন অবশেষে সেই অপেক্ষার অবসান হলো প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চলের বোলারের। প্রতিপক্ষের ওপেনার সাদমান ইসলামকে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেলে প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫০০ উইকেটের চূড়ায় পৌঁছান।

অবশ্য সে জন্যও কম অপেক্ষায় থাকতে হয়নি রাজ্জাককে। কারণ দক্ষিণাঞ্চলের ৪৪৮ রানের জবাবে বিনা উইকেটে ১৪ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করা মধ্যাঞ্চলের দুই ওপেনার রবিউল ইসলাম ও সাদমান মিলেই যে স্কোরবোর্ডে জমা করেন ১৭১ রান। তবে দুজনের কেউই পাননি সেঞ্চুরি। মেহেদী হাসানের বলে তুষার ইমরানের ক্যাচ হয়ে রবিউলের (৯০) ফিরে যাওয়ার মাধ্যমে ভাঙে জুটি। বিকেএসপিতে তৃতীয় দিনের বিকেলে ৮৯ রান করা সাদমানকেও হতাশায় ডুবিয়েছেন রাজ্জাক। তবে রকিবুল হাসান (৮২*) ও মেহরাব হোসেন জুনিয়রের (৪২*) ২ উইকেটে ৩১৩ রান নিয়ে ভালোভাবেই দিন শেষ করেছে মধ্যাঞ্চল।

নিশ্চিত ড্রয়ের দিকে এগোতে থাকা ম্যাচটি রাজ্জাকের ১১৩-তম প্রথম শ্রেণির ম্যাচ। জাতীয় দলে বেশ কিছুদিন ধরেই উপেক্ষিত এই স্পিনারের চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলা আরেক বাঁহাতি স্পিনার এনামুল হক জুনিয়র ৪৩৮ উইকেট নিয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেটধারী বোলার। ৫০০ উইকেটের মাইলফলকে পৌঁছানো রাজ্জাকের অবশ্য আরো রেকর্ডও আছে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ম্যাচে সর্বোচ্চ ৮ বার ১০ উইকেট নেওয়া বাংলাদেশি বোলারও তিনিই। ওদিকে সিলেটে দ্বিতীয় রাউন্ডের অন্য ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষে ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের (প্রথম ইনিংস ২১১) বিপক্ষে ২৪৯ রানের লিড বিসিবি উত্তরাঞ্চলের (১৮২ ও ২৭৩/৮)। আজ শেষ দিনে তাই ফল দেখতে পারে ম্যাচটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চল

দক্ষিণাঞ্চল : প্রথম ইনিংস ১১৫.৪ ওভারে ৪৪৮ (নুরুল ১৩৩, শাহরিয়ার ৮০, তুষার ৫৬, আল-আমিন ৫২; এবাদত ৩/৮৭, আবু হায়দার ৩/১০০)।

মধ্যাঞ্চল : প্রথম ইনিংস : ৯৪ ওভারে ৩১৩/২ (রবিউল ৯০, সাদমান ৮৯, রকিবুল ৮২*, মেহরাব ৪২*; রাজ্জাক ১/৮৭, মেহেদী ১/৬২)।

উত্তরাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চল

উত্তরাঞ্চল : ১৮৭ এবং ৭৭.২ ওভারে ২৭৩/৮ (ফরহাদ ৮৫; খালেদ ৪/৮৬, জায়েদ ২/৬৪)। পূর্বাঞ্চল : ৬৩.৪ ওভারে ২১১ (মেহেদী ৪৬*, ইয়াসির ৪৫; আরিফুল ৩/৪৪, ফরহাদ রেজা ৩/৪৭, শফিউল ৩/৬৮)।


মন্তব্য