kalerkantho


হাতুরাসিংহের ঢাল পেরেরা

২০ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



হাতুরাসিংহের ঢাল পেরেরা

বড় হারের পরও তামিমের সঙ্গে হাস্যোজ্জ্বলভাবেই হাত মেলালেন চন্দিকা হাতুরাসিংহে। শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসা থিসারা পেরেরাও উচ্ছ্বসিত প্রশংসায় ভাসিয়েছেন বাংলাদেশের সাবেক এবং নিজেদের বর্তমান কোচকে।

ক্রীড়া প্রতিবেদক : কোচ বদলাল কিন্তু ভাগ্য বদলাল না শ্রীলঙ্কার। চন্দিকা হাতুরাসিংহের অধীনেও সেই হারের বৃত্তবন্দি তারা। প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তবু প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছিল, কাল বাংলাদেশের বিপক্ষে যে একেবারে নতজানু আত্মসমর্পণ। সর্বশেষ ১৫ ওয়ানডেতে এক জয় নিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করা শ্রীলঙ্কার জন্য পরিসংখ্যানটা এখন ১৭-তে এক!

নতুন কোচে পুরনো ফলে লঙ্কানদের হতাশ হওয়াই স্বাভাবিক। তাই বলে দুই ম্যাচ পরই কোচকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দেওয়া তো কাজের কথা নয়। থিসারা পেরেরা অমনটা করেননি। তবে দলের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসা এই অলরাউন্ডার বরং উচ্ছ্বসিত প্রশংসায় ভাসালেন বাংলাদেশের সাবেক এবং নিজেদের বর্তমান কোচকে, “আমি মনে করি, এটি আমাদের জন্য ইতিবাচক দিক। চন্দিকা বিশ্বের অন্যতম সেরা কোচ। ২০১১-১২ সালের দিকে ‘এ’ দলে থাকার সময় আমি তাঁর সঙ্গে কাজ করেছি। তবে তাঁর সময়ের প্রয়োজন। কারো পক্ষেই অলৌকিক কিছু করা সম্ভব না।” বাংলাদেশের বিপক্ষে জেতাটা কি এখন ‘অলৌকিক’ মনে হচ্ছে লঙ্কানদের কাছে? খোলাসা করেননি পেরেরা। হয়তো তাই; নয়তো আরো বড় ক্যানভাসে বলেছেন ওই কথাটি।

বাংলাদেশের জয় ১৬৩ রানে, স্কোরকার্ডই লঙ্কানদের বিধ্বস্ত হওয়ার সাক্ষী। তবু পুরোপুরি নুয়ে পড়ছেন না পেরেরা, ‘ক্রিকেটে এমন হতেই পারে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচ থেকে আমাদের ইতিবাচক অনেক কিছু নেওয়ার ছিল। কিন্তু আজ আমরা পরিকল্পনা অনুযায়ী ব্যাটিং করতে পারিনি। এটি অবশ্যই ৩০০-র বেশি রানের উইকেট। তবে ব্যাটিংয়ে আমরা জ্বলে উঠতে পারিনি।’ পরিকল্পনার বাস্তবায়নে ব্যর্থতায় এমন পরাজয় বলে দাবি তাঁর, ‘সাকিব ও তামিম তো খুব ভালোভাবে ব্যাটিং করছিল। তখন মনে হচ্ছিল সাড়ে তিন শ হতে পারে। সেখান থেকে ৩২০ হলো। আমরা তাই ভালোভাবেই ফিরে এসেছিলাম। আমাদের বোলিং বিভাগও প্রথম ১০ ওভারে ভালো করেছে। কিন্তু সব মিলিয়েই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করতে পারিনি। আশা করি, পরের ম্যাচে আমরা প্রবলভাবে ফিরে আসব।’ সে ফিরে আসায় অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজকে পাবেন কি না, নিশ্চিত নন, ‘আমাদের ব্যাটিং বিভাগে অ্যাঞ্জেলো গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। আগামী কয়েক ম্যাচে খেলতে পারবে কি না, তা জানি না। তবে ওর না থাকাটা সত্যি অনেক বড় ধাক্কা।’

দুই ম্যাচ শেষেও পয়েন্ট টেবিলে কোনো পয়েন্ট নেই শ্রীলঙ্কার। এখন ফাইনালে যাওয়ার জন্য করণীয়টা ঠিক জানেন পেরেরা, ‘পরের দুটি ম্যাচে জিততেই হবে।’ সর্বশেষ ১৭ ওয়ানডের একটিতে জেতা দল পর পর দুই ম্যাচে জিতে যাবে—ভাবাটা বড্ড কঠিন!


মন্তব্য