kalerkantho


মেসি ঝলকে বার্সারও বড় জয়

২৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মেসি ঝলকে বার্সারও বড় জয়

দুটি ম্যাচে প্রায় একই গল্প। রিয়ালের মাঠে দেপোর্তিভো শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ার পর কে ভেবেছিল স্কোরলাইন ৭-১-এ থামবে। রিয়াল বেতিসের মাঠে তেমনি ৫৮ মিনিট পর্যন্ত গোলশূন্য বার্সা পরের ৩২ মিনিটে ৫ গোল করে ম্যাচটিকে ছেলেখেলা বানিয়ে ফেলবে ভাবা যায়নি।

লিওনেল মেসির জোড়া গোল, দুই গোল লুই সুয়ারেসের, সঙ্গে ইভান রাকিতিচের লক্ষ্যভেদে এই বড় জয়। রাকিতিচকে দিয়েই শুরু, মাঝমাঠ থেকে কয়েকটি টাচে ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডারকে বলটা বের করে দিয়েছিলেন সতীর্থরা। গোলরক্ষককে একা পেয়ে তিনি সুযোগ নষ্ট করেননি। এই গোলেই বাঁধটা ভেঙে যায় স্বাগতিকদের। নিজেদের অর্ধে সের্হিয়ো বুশকেেজর কাছে বল হারান বেতিসের এক খেলোয়াড়। বুশকেত্জ দেরি করেননি সুযোগের অপেক্ষায় থাকা মেসিকে সেই বল পাঠিয়ে দিতে, অনায়াসে প্রতিপক্ষের ডিফেন্স দেয়াল ভেঙে গোল করে বেরিয়ে আসেন আর্জেন্টাইন তারকা। পরের গোলটি সুয়ারেসের, তবে এর আগে বক্সের ওপর বেতিস ডিফেন্ডারদের একরকম নাচিয়েছেন মেসি, শেষ মুহূর্তে বল ছেড়েছেন রাকিতিচকে, তাঁর স্কয়ার পাসেই উরুগুইয়ান স্ট্রাইকারের ভলি এক ড্রপ খেয়ে জালে। মেসি নিজের দ্বিতীয় গোলেও বেতিস ডিফেন্ডারদের ঘোল খাইয়ে ছেড়েছেন। মাঝমাঠ থেকে সুয়ারেসের বল পেয়ে তিন ডিফেন্ডারের দেয়াল অনায়াস ড্রিবলিংয়ে পেরিয়ে গেছেন, এরপর গোলরক্ষককে তো ফাঁকি দিতে পারেন চোখ বন্ধ করে, দিয়েছেনও। ম্যাচের তখন ৮০ মিনিট। ৪-০তে পিছিয়ে পড়ে নিজেদের মাঠে বেতিসের তখন নাজেহাল হওয়া সারা। কিন্তু থামেনি বার্সা, থামেননি মেসি। সের্গি রবার্তোর কাছ থেকে ডান প্রান্তে বল পেয়ে দারুণ এক স্প্রিন্টে পৌঁছে গেছেন বক্সের সীমানায়, সুয়ারেসকে ফাঁকা দেখে তাঁকেই বল ছেড়েছেন। বার্সার নাম্বার নাইনও হতাশ করেননি।

ম্যাচটা তাই মেসির ‘শোম্যানশিপের’ আরেকটি দৃষ্টান্তই হয়ে থাকবে শেষ পর্যন্ত। ম্যাচ শেষে এর্নেস্তো ভালভের্দেকেও তাই মেসিকে নিয়ে প্রশংসার পুরনো রেকর্ডটাই বাজাতে হয়েছে নতুন করে, ‘আমি আগেই বলেছি, ওর বিপক্ষে কোচ হিসেবে এমনভাবে নাজেহাল হতে হয়েছে আমাকে অনেকবার, আমি জানি ও কী। আমাদের এখন একটাই কাজ, শুধু ওর খেলা উপভোগ করে যাওয়া।’  এই জয়ে এবং অন্যদিকে জিরোনার সঙ্গে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের ড্রয়ে বার্সা এখন ১১ পয়েন্ট এগিয়ে থেকে শীর্ষে, ৪-এ থাকা রিয়ালের সঙ্গে ব্যবধান ১৯ পয়েন্টের।

ফ্রেঞ্চ লিগে এদিন মৌসুমে দ্বিতীয় হারের স্বাদ পেয়েছে প্যারিস সেন্ত জার্মেই। দানি আলভেসের লাল কার্ডে দশজনের দলে পরিণত হওয়া পিএসজি ২-১ গোলে হেরে যায় লিওঁর কাছে। নেইমার খেলেননি চোটের কারণে।  নাবিল ফেকিরের গোলে শুরুতেই এগিয়ে যায় লিওঁ, বিরতির আগে লেভিন কুরজাওয়া সমতা ফেরালেও। অতিরিক্ত সময়ে মেমফিস দিপেইয়ের গোল ব্যবধান গড়ে দেয়। ওদিকে ইতালিয়ান সিরি ‘এ’-র হাই ভোল্টেজ ম্যাচে ইন্টার মিলান ১-১ গোলে ড্র করেছে রোমার সঙ্গে। এএফপি


মন্তব্য