kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

এবার ভেবেছি, ৩০-৪০ রানে আটকে থাকব না

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



এবার ভেবেছি, ৩০-৪০ রানে আটকে থাকব না

পাঁচ ম্যাচে ৩১৪ রান। ফিফটি তিনটি; গড় ৭৮.৫০। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের শুরুটা দুর্দান্তই হয়েছে নুরুল হাসানের। শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের অধিনায়ক ধরে রাখতে চান এই ধারাবাহিকতা। আর মনের ভেতরে জাতীয় দলে ফেরার ইচ্ছাটাও যে প্রতিনিয়ত তাতিয়ে দিচ্ছে, কালের কণ্ঠ’র মুখোমুখি হয়ে সেটাও জানালেন তিনি

 

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : ব্যাট হাতে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের শুরুটা তো খুব ভালো হলো। এ জন্য নেপথ্যে আলাদা কোনো অনুপ্রেরণা কাজ করেছে?

নুরুল হাসান : নাহ্। ভালো তো সব সময় খেলতে চাই; কিন্তু পারি না। এবার লিগ শুরুর আগেও একই লক্ষ্য ছিল। একটা পরিবর্তন বলতে পারেন। আগে অনেকগুলো ইনিংস ৩০-৪০ রানে শেষ হয়ে গেছে। এবার ভেবেছি, ৩০-৪০ রানে আটকে থাকব না। অত দূর যদি যেতে পারি, তাহলে ইনিংসগুলো যেন আরো অনেক লম্বা হয়।

প্রশ্ন : তা হয়েছে। আপনার পঞ্চাশ পেরোনো তিনটি ইনিংস ৯০, ৭৭ ও ৮৩ রানের। সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ নেই?

নুরুল : আমি এবার খেলছি অধিনায়ক হিসেবে। আগে শুধু নিজের ব্যাটিং ও কিপিং নিয়ে ভাবলে হতো। এখন আরো অনেক কিছু নিয়ে ভাবতে হয়। নিজে সেঞ্চুরি করলে ভালো লাগত অবশ্যই; কিন্তু তা নিয়ে খুব বেশি ভাবনার সুযোগ নেই। আর আমি তো ব্যাটিংয়ে নামি ছয় নম্বরে। ওখানে স্ট্রাইক রেট খুব গুরুত্বপূর্ণ। দলের কথা না ভেবে নিজের সেঞ্চুরির কথা ভাবার মতো স্বার্থপর কখনোই ছিলাম না। এখন তো অধিনায়ক হিসেবে আরো না।

প্রশ্ন : অধিনায়কত্ব উপভোগ করছেন কেমন?

নুরুল : ওই যে বললাম, এখন অনেক কাজ। চাইলে এটিকে চাপ হিসেবে দেখা যায়। আবার চাইলে উপভোগও করা যায়। আমি উপভোগ করছি।

প্রশ্ন : শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের লক্ষ্যটা কী?

নুরুল : প্রথম লক্ষ্য সেরা ছয় দলের মধ্যে থাকা। সুপার লিগ নিশ্চিত করা। এরপর যা হয় দেখা যাবে। লিগের শুরুটা আমাদের জন্য খারাপ হয়নি। প্রথম পাঁচ ম্যাচের মধ্যে তিনটিতে জিতেছি। অন্য দুই খেলায়ও জিততে পারতাম। এভাবে যদি খেলতে থাকি, তাহলে সুপার লিগ খেলতে পারব।

প্রশ্ন : গত বছরের জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ড সফরে জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন সর্বশেষ। ঢাকা লিগ শুরুর আগে জাতীয় দলে ফেরার ব্যাপারটা কি মাথায় ছিল?

নুরুল : জাতীয় দল মাথায় থাকে সব সময়। আমি বিষয়টি দেখি একটু অন্যভাবে। আমার কাজ পারফরম করা; ভালো খেলা। সেই ভালোটা সব সময় খেলতে চাই। যদি ভালো খেলতে পারি, তাহলে জাতীয় দলে আবার নিশ্চয়ই সুযোগ পাব।


মন্তব্য