kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

খাজা রহমতউল্লাহ মাঠে খেলা রেখেছিলেন

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



খাজা রহমতউল্লাহ মাঠে খেলা রেখেছিলেন

দুই বছর পর মাঠে গড়িয়েছে ঘরোয়া হকি। ছয় দলের আসরে আবাহনী ফেভারিটের মতোই শুরু করেছে বাংলাদেশ পুলিশকে ৭-১ গোলে হারিয়ে। ম্যাচে নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে কথা বলেছেন আবাহনীর নতুন অধিনায়ক খোরশেদুর রহমান

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : মৌসুমের প্রথম ম্যাচ খেললেন, কেমন লাগছে?

খোরশেদুর রহমান : ভালো। খুব অল্প সময় পেয়েছি প্রস্তুতির। এখন ম্যাচ খেলে নিজেদের গুছিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছি। কোচের ফরমেশন অনুযায়ী খেলছি।

প্রশ্ন : শুরুতে আপনার হাতে অধিনায়কের আর্মব্যান্ড দেখলাম, পরে সেটা আবার রোমান সরকারের হাতে...

খোরশেদ : আসলে আমি চোট পেয়ে বেরিয়ে যাওয়ার পরই ও আর্মব্যান্ডটা নেয়। আমি মাঠে ফেরার পরও সেটা আর নেওয়া হয়নি।

প্রশ্ন : আপনিই তো মূল অধিনায়ক, প্রথমবারের মতো?

খোরশেদ : হ্যাঁ, আবাহনীর মতো বড় ক্লাবের অধিনায়কত্ব পাওয়া সত্যি গর্বের ব্যাপার। সবাই সহযোগিতা করছে, খেলোয়াড়রা যেমন তেমনি কোচও।

প্রশ্ন : আজ প্রথম ম্যাচে আপনাদের খেলায় কিন্তু জড়তা ছিল...

খোরশেদ : শুরুতে যে বললাম অনুশীলনের তেমন সুযোগ পাইনি, সে জন্যই। তবে যতটুকু খেলতে পেরেছি, আমরা তাতে খুশি।

প্রশ্ন : দ্বিতীয়ার্ধে আবার মনে হয়েছে আপনারা বেশি গোল দিতে চাচ্ছেন না।

খোরশেদ : তা নয়। আমরা পরিকল্পনা অনুযায়ীই খেলেছি। প্রত্যাশিত গোল পাইনি, এটা ঠিক।

প্রশ্ন : দলের সমন্বয় নিয়ে কতটা খুশি; মুসা মিয়া, শহীদুল্লাহ খোকনের মতো বেশি বয়সীরা খেলছেন আপনাদের দলে, তাতে ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে না?

খোরশেদ : কে কী বলে জানি না, তবে আবাহনী চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই দল গড়েছে। আর মুসা মিয়ার মতো খেলোয়াড়রা আমাদের দলের অভিজ্ঞতা বাড়িয়েছে বরং। তাঁরা দেশের শীর্ষ খেলোয়াড়দের একজন। তাঁদের জায়গাগুলো তাই মোটেও ঘাটতি হিসেবে দেখছি না আমি।

প্রশ্ন : ছয় দলের এই টুর্নামেন্ট মেরিনার্সই তো আপনাদের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী, তাই না?

খোরশেদ : প্রতিদ্বন্দ্বী সবাই-ই এখন। প্রতিটি খেলাই সেরাটা দিয়ে খেলতে হবে। চ্যাম্পিয়ন হতে হবে আমাদের।

প্রশ্ন : খাজা রহমতউল্লাহর নামে হচ্ছে এই আসর,  উনাকে কতটা মনে করেন আপনারা?

খোরশেদ : উনি থাকাকালীন খেলা ছিল মাঠে। এটা কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। সব টুর্নামেন্ট হয়েছে। মাঠের বাইরে কী হয়েছে না হয়েছে জানি না। তবে উনাকে আমরা সব সময়ই মিস করি।

প্রশ্ন : এবার ছয় দলের টুর্নামেন্ট হচ্ছে শুনে নিশ্চয় হতাশ হয়েছিলেন?

খোরশেদ : আমরা তো চাই সবগুলো দল যেন অংশ নেয়। মাঠে খেলা থাকলে খেলোয়াড়দেরই উপকার। তাতে বাংলাদেশের হকিও তো উপকৃত হবে।



মন্তব্য