kalerkantho


খেলা ছাপিয়ে ঐক্যের আর্তি

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



ক্রীড়া প্রতিবেদক : বেলুন উড়ল না, না কোনো জাঁকজমক। ক্লাব কাপের উদ্বোধনী বিষাদে মুড়ে থাকল। ডায়াসে খাজা রহমতউল্লাহর সহধর্মিণী অনেক কষ্টে চোখের জলে বাঁধ দিয়েছেন। ভারী গলায় যেটুকু বলতে পেরেছেন, তাতেও সবার চোখ ছলো ছলো। হকির মানুষ না হয়েও হকি নিয়ে তাঁর ভাবনা হৃদয় ছুঁয়ে যায়, ‘আজ রহমতউল্লাহর নামে এই টুর্নামেন্ট হচ্ছে। জানি না, ও এমন কিছু চেয়েছিল কি না। তবে এটা জানি, ও হকিতে ঐক্য চেয়েছিল। সবগুলো ক্লাব যদি এই টুর্নামেন্টে অংশ নিত তাহলেই আমি সবচেয়ে বেশি খুশি হতাম।’

আবাহনী, মেরিনার্স খেলছে। কিন্তু মোহামেডান, ঊষা ছাড়া আসরের প্রতিদ্বন্দ্বিতা একেবারেই মাঠে মারা গেছে। কাল বাংলাদেশ পুলিশের সঙ্গে আবাহনীর খেলা যেমন দর্শক মাতাতে পেরেছে সামান্যই। মৌসুমের প্রথম ম্যাচ, তাতে আবাহনীর খেলায়ও জড়তা ছিল। পুলিশের সাধ্য ছিল না আকাশি-নীল সীমানায় হানা দেওয়ার। শেষ পর্যন্ত তারা জিতেছে ৭-১ গোলে। 

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে আরেক শিরোপাপ্রত্যাশী মেরিনার্সও ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে জিতেছে ৮-০ গোলের বড় ব্যবধানে।

সন্ধ্যা ৭টা থেকে ফ্লাডলাইটের আলোয় হয়েছে মেরিনার্স-ভিক্টোরিয়ার পুরো ম্যাচটি। আবাহনী-পুলিশ ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধ থেকেই জ্বলে উঠেছিল আলো। ঘরোয়া হকিতে তা প্রথমবার। খাজা রহমতউল্লাহ সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীনই এই ফ্লাডলাইট বসানোর তোড়জোড় শুরু হয়। তাঁর সময়েই বিশ্ব হকি সংস্থার সভাপতি লিওন্দ্রো নেগ্রের দুইবারের বাংলাদেশ সফরে নতুন নীল টার্ফ ও এই ফ্লাডলাইট বসানোর পথ তৈরি হয়েছিল। কিন্তু কয়েকটি ক্লাবের বিরোধিতার মুখে শেষ পর্যন্ত তিনি দায়িত্বে থাকতে পারেননি। আব্দুস সাদেককে চেয়ারে বসিয়ে নিজে সহসভাপতি হয়ে পার করেন ঢাকার মাঠের দ্বিতীয় এশিয়া কাপ। এর পরপরই জাতীয় দলের সাবেক এই তারকা খেলোয়াড় এবং সফল সংগঠকের আকস্মিক মৃত্যু পুরো হকি অঙ্গনকে স্তব্ধ করে দেয়। কিন্তু ক্লাবগুলোর মধ্যে ঐক্য ফেরেনি। তাঁর সময়ে হকি কর্মকাণ্ডে বিরোধিতা করা মোহামেডান এই ক্লাব কাপও খেলছে না। সঙ্গে নতুন যুক্ত হয়েছে ঊষা। সর্বশেষ নির্বাচনে ঊষা কর্মকর্তাদের বিরোধ শুরু হয় রহমতউল্লাহর সঙ্গে। তিনি চলে গেছেন কিন্তু বিরোধ তো থামেনি। নাদিরা রহমতউল্লাহর বেদনাভরা আর্তিতে কি তারা সাড়া দেবেন?


মন্তব্য