kalerkantho


বরফের আস্তরণ ভেঙে বেরিয়ে আসছে নাসারন্ধ্র, কার?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ১০:৪৭



বরফের আস্তরণ ভেঙে বেরিয়ে আসছে নাসারন্ধ্র, কার?

উত্তর ক্যারোলিনা। তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে। তীব্র ও তীক্ষ্ণ ঠাণ্ডায় জীবন ওষ্ঠাগত। ভীষণ প্রয়োজন ছাড়া মানুষ বাইরে বের হয় না। নিতান্ত বাধ্য না হলে জানালা খুলে বাইরে নাক বের করে না। ঠিক এমন সময় নাক বের করতে হচ্ছে তাদের। বাধ্য হয়েই, কেননা নাক বের না করলে যে নিঃশ্বাস নিতে পারবে না তারা। তাই হিমশীতল পানির ওপর জমে থাকা বরফের আচ্ছাদন ভেঙে পানির ওপর ভেসে উঠছে তাদের মাথা। শ্বাস নিচ্ছে, বাঁচাচ্ছে জীবন। 

এমন দৃশ্য দেখা গেছে সোয়াম্প পার্কের শ্যালট নদীতে। সেখানেই বরফের আচ্ছাদন ভেদ করে মাথা তুলতে দেখা গেছে তাদের। তারা আর কেউ নয়, বিশালাকার সব অ্যালিগেটর। 

আরো পড়ুন : হাঙরের কবল থেকে মানুষকে বাঁচানোর নজির গড়ল তিমি

যদিও এমন হওয়ার কথা নয়। কারণ, অ্যালিগেটর সেই প্রজাতির প্রাণী যারা শীতঘুমে যায়। এটাকে বলা হয় ব্রুমেশন। এই প্রক্রিয়ায় শীতল রক্তের প্রাণীরা অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পড়লে এই শীতঘুমে যায়। এ সময় অ্যালিগেটর বা এ-প্রজাতির প্রাণীরা কম আহার গ্রহণ করে এবং তাদের নিঃশ্বাস নেওয়ার পরিমাণও কমে যায়। অথচ এখন ওই অঞ্চলে ঠাণ্ডার পরিমাণ এতটাই অসহ্য যে অ্যালিগেটররা বাধ্য হয়ে নিঃশ্বাস নিতে উঠে আসছে পানির ওপর, বরফের আচ্ছাদন ভেদ করে মাথা তুলছে ওপরে।

সোয়াম্প পার্কের কর্মকর্তরা জানিয়েছেন, ক'দিন পর আবহাওয়া একটু উণষ্ণ হয়ে এলেই অ্যালিগেটররা পানি থেকে উঠে আসবে ডাঙায়, খাবারের সন্ধানে। 
সূত্র : অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস    


  

   

 


মন্তব্য